July 2020
1 SPORTS 1 TECHNOLOGY 2 অজ্ঞাত লাশ-সোনারগাঁও 4 অনিয়ম 1 অনিয়ম- শহীদ মিনার নির্মাণ 1 অনুদান 1 অপমৃত্যু-সোনারগাঁও 1 অপরাদ 39 অপরাধ 18 অপরাধ দমন 1 অপরাধ দমনে ভ্রাম্যমান আদালত 22 অপরাধ সোনারগাঁ 1 অফিস উদ্ধোধন 1 অভিনন্দন 1 অর্জন 1 অস্র উদ্ধার 3 আইনশৃঙ্খলা 12 আড়াইহাজার 4 আদালত 1 আন্তর্জাতিক 1 আশ্চার্য 1 ইফতার ও মাক্স বিতরণ-সোনারগাঁও 2 ঈদ উপহার-সোনারগাঁও 1 ঈদ কেনাকাটা -সোনারগাঁও 5 ঈদ শুভেচ্ছা 1 উদ্ধার 1 উদ্যোক্তা 6 উন্নয়ন 2 কক্সবাজার 1 কারাগার নারায়ণগঞ্জ। 2 কুড়িগ্রাম 3 কৃষকের ভাবনা 1 খুন 6 খেলাধুলা 2 গ্রেফতার -নারায়ণগঞ্জ 1 গ্রেফতার -সোনারগাঁও 3 চট্টগ্রাম 1 চাকরি 1 চাঁদপুর 2 চিকিৎসা 1 চুরি 2 জন দূর্ভোগ 1 জনসেবা ও পুলিশ 1 জনস্বার্থ 3 জন্ম উৎসব 1 জন্মদিন 3 জন্মশতবার্ষিকী পালন 96 জাতীয় 1 জাতীয়। 1 জালিয়াতি 1 টাঙ্গাইল 1 ঢাকা 1 তথ্য 1 তদন্ত 4 ত্রাণ বিতরণ 1 ত্রাণ বিতরন-বন্দর 1 দুর্যোগ 6 দূর্ঘটনা 1 ধর্ষন 1 নগদ অর্থসহায়তা 9 নারায়ণগঞ্জ 1 নারায়ণগঞ্জ সদর 39 নারায়াণগঞ্জ 1 নারায়াণগঞ্জে অস্রের লাইসেন্স। 4 নির্বাচন 3 নির্বাচন সোনারগাঁও 1 নৌকাডুবি 1 পরিচ্ছন্নতা 4 প্রতিবাদ 1 প্রতিবাদ সভা 1 প্রতিবাদ সোনারগাঁ 4 প্রধানমন্ত্রীর উপহার-সোনারগাঁও 2 ফতুল্লা নারায়ণগঞ্জ 1 বন্দর মডেল প্রেসক্লাব 3 বন্দর-নারায়ণগঞ্জ 1 বন্দর(নারায়ণগঞ্জ) 2 বহিঃবিশ্ব 2 বহিষ্কার 1 বাক্ষণবাড়িয়া 1 বানিজ্য 1 বাল্য বিবাহ বন্ধ 1 বিট পুলিশিং সোনারগাঁ 1 বিশ্ব 1 বিশ্ব বাজার 1 ব্যবসা বানিজ্য 1 ভিত্তিপ্রস্তর 1 ভূয়া কর্মকর্তা গ্রেফতার 1 ভ্রাম্যমান আদালত-সোনারগাঁও 1 মাদক উদ্ধার-নারায়ণগঞ্জ 1 মাদারীপুর 1 মানবতার সেবা 1 মানবন্ধন 1 মানবিকতা 1 মানিকগঞ্জ 1 মামলা 1 মাস্ক বিতরণ 1 মিডিয়া 2 মিডিয়া সংবাদ 3 মৃত্যু 1 রক্তদান 6 রাজনীতি 1 রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন 1 রূপগঞ্জ 1 র‌্যাব নারায়ণগঞ্জ 2 র‌্যাবের হাতে গ্রেফতার 2 লকডাউন 3 শোক 4 শোক বার্তা 1 শোখ নিউজ 1 সংবাদ সম্মেলন 1 সভা-প্রতিবাদ 2 সারা বাংলা 3 সারাবাংলা 1 সিদ্ধিরগঞ্জ 1 সিনেমা 1 সেবা 3 সোনারগাঁ 1 সোনারগাঁ যাদুঘর 103 সোনারগাঁও 1 সোনারগাঁও জার্নালিষ্ট ক্লাব-নারায়ণগঞ্জ 1 সোনারগাঁও থানা পুলিশ 1 সোনারগাঁও থানা মসজিদ 2 সোনারগাঁও থানা(নারায়ণগঞ্জ) 2 সোনারগাঁও পৌর নির্বাচন 1 সোনারগাঁও মানবন্ধন 15 সোনারগাঁও রাজনীতি 3 সোনারগাঁও। 1 সোমারগাঁও 1 স্বাস্থ্য 1 স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা 1 হত্যার হুমকি

সদ্য সংবাদ ডেস্কঃ  শোকের মাস আগস্ট শুরু হচ্ছে আগামীকাল শনিবার। ১৯৭৫ সালে ১৫ আগস্ট মানবতার শত্রু প্রতিক্রিয়াশীল ঘাতকচক্র বাঙালি জাতির মুক্তি আন্দোলনের মহানায়ক, বিশ্বের লাঞ্ছিত-বঞ্চিত-নিপীড়িত মানুষের মহান নেতা, বাংলার হাজার বছরের আরাধ্য পুরুষ, বাঙালির নিরন্তন প্রেরণার উৎস, স্বাধীন বাংলাদেশ রাষ্ট্রের স্থপতি, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যা করে।এরপর থেকে এই দিনটি


মানবসভ্যতার ইতিহাসে ঘৃণ্য ও নৃশংসতম হত্যাকান্ডের কালিমালিপ্ত বেদনাবিধুর শোকের দিন হিসেবে পরিচিত। তাই আগস্ট মাসকে আওয়ামী লীগসহ জাতি পালন করে শোকের মাস হিসেবে।

সেদিন ইতিহাসের নিষ্ঠুরতম এই হত্যাকান্ডে বঙ্গবন্ধুর সহধর্মিনী, মহিয়সী নারী বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব, বঙ্গবন্ধুর একমাত্র ভ্রাতা শেখ আবু নাসের, জাতির পিতার জ্যেষ্ঠ পুত্র বীর মুক্তিযোদ্ধা ক্যাপ্টেন শেখ কামাল, দ্বিতীয় পুত্র বীর মুক্তিযোদ্ধা লেফটেন্যান্ট শেখ জামাল, কনিষ্ঠ পুত্র নিষ্পাপ শিশু শেখ রাসেল, নবপরিণীতা পুত্রবধূ সুলতানা কামাল ও রোজী জামাল, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক শেখ ফজলুল হক মণি ও তাঁর অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী বেগম আরজু মণি, স্বাধীনতা সংগ্রামের অন্যতম সংগঠক ও জাতির পিতার ভগ্নিপতি আব্দুর রব সেরনিয়াবাত, তাঁর ছোট মেয়ে বেবী সেরনিয়াবাত, কনিষ্ঠ পুত্র আরিফ সেরনিয়াবাত, দৌহিত্র সুকান্ত আব্দুল্লাহ বাবু, ভাইয়ের ছেলে শহীদ সেরনিয়াবাত, আব্দুল নঈম খান রিন্টু, বঙ্গবন্ধুর প্রধান নিরাপত্তা অফিসার কর্নেল জামিল উদ্দিন আহমেদ ও কর্তব্যরত অনেক কর্মকর্তা-কর্মচারী নৃশংসভাবে নিহত হন।

প্রতিবারের ন্যায় এবারও শোকার্ত বাঙালি জাতির সাথে একাত্ম হয়ে আওয়ামী লীগ ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন উপলক্ষে কেন্দ্রীয়ভাবে নানা কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। করোনা মহামারীর সংক্রমণ রোধে যথাযথ স্বাস্থ্য সুরক্ষাবিধি মেনে মাসব্যাপী শোক দিবসের বিভিন্ন কর্মসূচি পালনের জন্য আওয়ামী লীগের সর্বস্তরের নেতা-কর্মী সমর্থক এবং সকল সহযোগী, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক সংগঠনসমূহের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।
একইসাথে আওয়ামী লীগের সকল সাংগঠনিক জেলা, মহানগর, উপজেলা, পৌর, ইউনিয়ন, ওয়ার্ডসহ সমস্ত শাখার নেতৃবৃন্দকে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে গৃহীত কেন্দ্রীয় কর্মসূচির সাথে সঙ্গতি রেখে কর্মসূচি পালনের অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি।
আজ শুক্রবার ৩১ আগস্ট রাত ১২টা ১ মিনিটে ১ আগস্টের প্রথম প্রহরে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর অভিমুখে আলোর মিছিলের মধ্য দিয়ে মাসব্যাপী কর্মসূচি শুরু করবে স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। 

আগামীকাল ১ আগস্ট শনিবার বিকেলে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরের সামনে রক্তদান ও প্লাজমা সংগ্রহ এবং মাসব্যাপী বৃক্ষরোপন কর্মসূচি শুরু করবে স্বেচ্ছাসেবকল লীগ। ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে এই কর্মসূচির উদ্বোধন করবেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। এছাড়াও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ও উত্তর আওয়ামী লীগ ঈদুল আযহার নামাজের পর ১৫ আগস্টে নিহত সকল শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়ার আয়োজন করেছে।

এ ছাড়া ৫ আগস্ট শহীদ শেখ কামালের জন্মদিন উপলক্ষে সকাল ৯ টায় ধানমন্ডি আবহানী ক্লাব প্রাঙ্গনে এবং সকাল ১০ টায় বনানী কবর স্থানে মরহুমের কবরে শ্রদ্ধাঘ্য অর্পণ, মিলাদ ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হবে। আওয়ামী লীগ, ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ সহ সহযোগী সংগঠনগুলো এই কর্মসূচিতে অংশ গ্রহণ করবে।
মহিলা আওয়ামী লীগ বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের জন্মদিন উপলক্ষে আগামী ৬ আগস্ট ভার্চ্যুয়াল আলোচনা সভার আয়োজন করছে। ৮ আগস্ট বঙ্গমাতা শহীদ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের জন্মদিন উপলক্ষে সকাল ১০ টায় তাঁর কবরে শ্রদ্ধার্ঘ্য অপর্ণ, কোরানখানি, মিলাদ ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে। আওয়ামী লীগ, ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ সহ সহযোগী সংগঠনগুলো এই কর্মসূচিতে অংশ গ্রহণ করবে। এছাড়া যুব মহিলা লীগ ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে মোমবাতি প্রজ্জলন এর কর্মসূচি গ্রহণ করেছে।

বঙ্গমাতা শহীদ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের জন্মদিন উপলক্ষে ৯ আগস্ট বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে আলোচনা সভার আয়োজন করেছে মৎস্যজীবী লীগ। বঙ্গমাতার জন্মদিন উপলক্ষে ১১ আগস্ট আলোচনা সভার আয়োজন করেছে স্বেচ্ছাসেবক লীগ।
এদিকে শোক দিবস উপলক্ষে ১৩ থেকে ১৫ আগস্ট ৩ দিন ব্যাপী আলোকচিত্র প্রদর্শনীর আয়োজন করেছে স্বেচ্ছাসেবক লীগ। শোক দিবস উপলক্ষে আওয়ামী যুবলীগ ১৪ আগস্ট বনানী কবরস্থানে পবিত্র কোরআন খতম ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করেছে।

১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন উপলক্ষে প্রতিবারের মতো এবারও কেন্দ্রীয়ভাবে নানা কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। ১৫ আগস্টের কর্মসূচিতে আছে- সূর্যোদয় ক্ষণে বঙ্গবন্ধু ভবন এবং কেন্দ্রীয় কার্যালয়সহ সারা দেশে সংগঠনের সব স্তরের কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা অর্ধনমিতকরণ ও কালো পতাকা উত্তোলন। সকাল ৯ টায় ধানমন্ডি-৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ। এ ছাড়াও ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ, সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠন এবং নগরীর প্রতিটি শাখা থেকে শোক মিছিলসহ বঙ্গবন্ধু ভবনে শ্রদ্ধা নিবেদন করবে।

কর্মসূচির মধ্যে সকাল ১০ টায় বনানী কবরস্থানে ১৫ আগস্টের শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধার্ঘ্য নিবেদন, কবর জিয়ারত, ফাতেহা পাঠ, মোনাজাত ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হবে। এ ছাড়া সকাল ১০টায় গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে শ্রদ্ধার্ঘ্য নিবেদন, ফাতেহা পাঠ, মিলাদ ও দোয়া মাহফিল।

বাদ জোহর দেশের সব মসজিদে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল। মন্দির, প্যাগোডা, গির্জা, উপাসনালয়ে বিশেষ প্রার্থনা। দুপুরে অসচ্ছল, এতিম ও দুস্থ মানুষের মাঝে খাদ্য বিতরণ। বাদ আসর মহিলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে বঙ্গবন্ধু ভবন প্রাঙ্গণে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল।

১৭ আগস্ট সারাদেশে সিরিজ বোমা হামলাকারীদের বিচারের দাবীতে মানববন্ধন কর্মসূচির আয়োজন করেছে বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসবেক লীগ। এছাড়াও, সিরিজ বোমা হামলা দিবস উপলক্ষে ছাত্রলীগ সকল সাংগঠনিক ইউনিটে (শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ছাড়া) যথাযথভাবে স্বাস্থ্য বিধি মেনে কালো পতাকা উত্তোলন ও ১ মিনিট নিরবতা পালন করবে।
১৮ আগস্ট শোক দিবস উপলক্ষ্যে ভার্চুয়াল সভার আয়োজন করেছে মহিলা আওয়ামী লীগ। শোক দিবস উপলক্ষে ২০ আগস্ট যুব মহিলা লীগ আলোচনা সভার আয়োজন করছে। এছাড়াও একই দিন ১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ সকল শহীদের আত্মার মাগফেরাত কামনায় দোয়া মাহফিল দুঃস্থদের মাঝে খাবার বিতরণ কর্মসূচি গ্রহণ করছে যুব লীগ।

গ্রেনেড হামলা দিবস উপলক্ষে ২১ আগস্ট সকাল ১০টায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ আওয়ামী লীগসহ সহযোগী সংগঠনসমূহ কর্মসূচি গ্রহণ করেছে।

গ্রেনেড হামলা দিবস উপলক্ষে ২২ আগস্ট ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে আলোচনা সভার আয়োজন করেছে তাঁতী লীগ, মহিলা আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগ।

২৪ আগস্ট নারী নেত্রী বেগম আইভী রহমানের স্মরণে বনানী কবরস্থানে শ্রদ্ধা নিবেদন, দোয়া ও মিলাদ মাহফিলে অংশগ্রহণ করবে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ আওয়ামী লীগসহ সহযোগী সংগঠনসমূহ।

জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে ২৫ আগস্ট যুবলীগ, ২৬ আগস্ট জাতীয় শ্রমিক লীগ ও মহিলা আওয়ামী লীগ, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা দিবস উপলক্ষে ২৮ আগস্ট যুব মহিলা লীগ আলোচনা সভার আয়োজন করবে।

১৫ আগস্ট ও ২১ আগস্টের পলাতক আসামিদের দেশে ফেরত এনে বিচারের রায় কার্যকর করার দাবিতে ২৯ আগস্ট মানববন্ধন (সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে) কর্মসূচির আয়োজন করবে মহিলা শ্রমিক লীগ। ৩০ আগস্ট ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ আওয়ামী লীগ এবং ৩১ আগস্ট বাংলাদেশ ছাত্রলীগের শোক দিবসের আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে। তবে অধিকাংশ কর্মসূচির সময় এখনও নির্ধারন করা হয়নি।

সদ্য সংবাদ ডেস্কঃ  

"ঈদ মানে আনন্দ ঈদ মানে খুশি" 
পবিত্র ঈদ-উল-আযহা উপলক্ষে সোনারগাঁও উপজেলা ইউনিট, একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সাধারণ সম্পাদক বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী গোলজার হোসেন ভুঁইয়া সোনারগাঁওবাসীকে  ঈদের শুভেচ্ছা জানান।
এক শুভেচ্ছা বার্তায় বলেন, দেশের এই সংকটাপন্ন সন্ধিক্ষণে মহামারী পরিস্থিতিতে সচেতনতা অবলম্বন করে পবিত্র ঈদ-উল আজহার ঈদ উদযাপন করার জন্য সোনারগাঁওবাসী কে বিনীতভাবে অনুরোধ করেন তিনি। 

তিনি বলেন জীবনের চেয়ে বড় কিছু নয়। নিজে বাঁচুন অপরকে বাঁচতে সহযোগিতা করুন। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন সতর্কতা অবলম্বন করুন। সকলের জন্য দোয়া করি পরিবার পরিজন আত্মীয়-স্বজন যে যেখানে পবিত্র ঈদ উদযাপন করবেন আল্লাহ সকলকে হেফাজত করুন সুস্থ রাখুন সুন্দর রাখুন। ঈদে পরিবার-পরিজন নিয়ে ঘরে থাকুন , সচেতনতা অবলম্বন করুন, সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখুন। সুখি সুন্দর জীবন গড়ুন।

তিনি বলেন আসুন আমরা পশু কোরবানির সাথে সাথে মনের পশুত্বকেও কোরবান করে সহি মানুষ হিসেবে আত্মশুদ্ধি লাভ করি।  

 এছাড়াও যারা কোরবানি দিবেন নির্দিষ্ট স্থানে কোরবানি দিন, আপনাদের কোরবানির পশুর বর্জ্য নির্দিষ্ট স্থানে ফেলবেন প্রয়োজনে কাজ শেষে ব্লিচিং পাউডার ছিটিয়ে,  আপনার আশপাশ ও পরিবেশ পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখুন।
আপনাদের মঙ্গল কামনা করছি। 

 ঈদ মুবারক।।

              ঈদ খুশি,ঈদ আনন্দ 
 
সদ্য সংবাদ ডেস্কঃঃ বিশিষ্ট ব্যবসায়ী, সমাজসেবক ও শিক্ষা-অনুরাগী ,উপজেলা বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সহ সভাপতি মোশাররফ হোসেন মিলন সোনারগাঁ বাসীকে পবিত্র ঈদ-উল আযহার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

এক শুভেচ্ছা বার্তায় তিনি বলেন,ত্যাগের মহিমায় মহিমান্বিত হয়ে প্রতি বছর ঈদ-উল আযহা আমাদের মাঝে ফিরে আসে। আল্লাহর নৈকট্য অর্জনের উদ্দেশ্যে আত্মোৎসর্গ করাই কোরবানির প্রধান শিক্ষা।
শুধু পশু কোরবানি দিলেই হবেনা,সেই সাথে মনের পশুত্বকেও কোরবানি দিতে হবে।      
ঈদ শান্তি,সহমর্মিতা ও ভ্রাতৃত্ববোধের অনুপম শিক্ষা দেয়। সাম্য, মৈত্রী ও সম্প্রীতির বন্ধনে আবদ্ধ করে সকল মানুষকে।

করোনা মহামারীর ভয়াবহতার মধ্যেও ঈদের খুশি আপনাদের জীবনকে মহান আল্লাহতায়ালা পূর্ণতা দান করুক। 
ঈদ হল খুশী আর আনন্দের উৎসব। 
            শান্তি সম্প্রীতির উৎসব। 
আগামী দিনেও দেশে এই শান্তি সম্প্রীতি বজায় থাকুক, তিনি সবার আনন্দময় জীবনের কল্যাণ কামনা করেন।

সদ্য সংবাদ ডেস্কঃ  

প্রতিবছর কোরবানীর ঈদকে কেন্দ্র করে নারায়ণগঞ্জের হোগলা- সাজি (টুকরি) ও খাটিয়ার দোকানগুলোতে বেঁচা-বিক্রি বেশি থাকলেও এবার ক্রেতার সংখ্যা অনেক কম। বিক্রেতারা জানায়, প্লাষ্টিকের ব্যবহার বাড়ায় হোগলা ও টুকরির চাহিদা কমেছে। এছাড়া করোনার কারনে পশু বিক্রি কমে যাওয়াও অন্যতম কারন। তবে ক্রেতারা বলছেন, ঈদকে ঘিরে এসব জিনিসের দাম বেশী হাকায় তারা বিকল্প খুঁজেন।

সরেজমিনে দেখা যায়, কোরবানীর ঈদকে কেন্দ করে শহরের জিমখানা, মন্ডলপাড়া, দিগুবাবুর বাজার এলাকায় বসেছে ছোট বড় কয়েটি খাটিয়া ও হোগলার দোকান। এসব দোকানে পর্যাপ্ত পরিমানের গাছের গুড়ি ও পাটি থাকলেও ক্রেতার সংখ্যা তেমন চোখে পরেনি। ঘণ্টার পর ঘণ্টা বসে থেকেও একটি হোগলা,খাটিয়া বিক্রি করতে না পাড়ায় হতাস বিক্রেতারা। 
তবে নারায়ণগঞ্জ কামার পট্টিতে নতুন করে চাপাতি, ছুরি বেচা-কেনা কম থাকলেও পুরাতন দা-বটিতে ধার দেওয়ার জন্য আসছেন অনেকেই। আর এই ধার দেওয়ার কাজে ব্যস্ত সময় পার করছেন এখানকার কারিগররা।

শিবু কর্মকার নামে এক কারিগর বলেন, দিনে দিনে লোহা ও কয়লার দাম বেড়েই চলেছে। তাই চাপাতি, দা-বটি, ছুরির দামও বেড়েছে। আগে মানুষ প্রতিবছর কোরবানীর সময় এসব পণ্য নতুন কিনতেন। সেখানে এখন এগুলোর দাম বেড়ে যাওয়ায় পুরাতন চাপাতি দা-বটিতে, ধার দিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। এতে খরচ হচ্ছে ১শ’ পঞ্চাশ থেকে দুইশ টাকার মতো।

তিনি আরো বলেন, আগে নিজেরাই কোরবানির পশু জবাই ও কাটার কাজ করতো মানুষ। এখন এই কাজটি করেন কসাইরা। বর্তমানে দা,বটি কেজি প্রতি ৬’শ টাকা, চাপাতি সাড়ে পাঁচশ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। ছুরি পিস প্রতি ২’শ টাকা, চামড়া ছোলার ছুরি তিনশ থেকে চারশ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে তবে কাঁচা লোহার পণ্যের দাম একটু কম। এ পেশার সঙ্গে জড়িতদের অবস্থা দিনে দিনে খারাপ হচ্ছে। এক এক দোকানে আগে যেখানে ৫ জন ছিলাম এখন সেখানে দুই জন টিকে আছি।

শহরের হোগলার দোকানগুলোতেও তেমন ক্রেতার দেখা মেলেনি। কারণ হিসেবে বিক্রেতারা বলছেন, আধুনিকতার ছোঁয়ায় এখন সাজির বদলে প্লাস্টিকের গামলা আর পাটির বদলে মোটা পলিথিন ব্যবহার করেন অনেকে। তাই হোগলা-সাজির কদরও কম। বর্তমানে সাড়ে ৩-সাড়ে ৪ হাত পাটি বিক্রি হচ্ছে ৩শ’ থেকে সাড়ে তিনশ টাকায়। সাড়ে ৪,সাড়ে পাচ হাত পাটি বিক্রি হচ্ছে তিনশ থেকে সাড়ে ৪শ’ টাকায়। সাজি আকারভেদে দুইশ থেকে তিনশ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে ।

স্থানীয় ব্যবসায়ী নাছির জানান, তেঁতুল গাছের খাটিয়ার কদর বেশি থাকলেও এই গাছের আমদানি কম। তাই দামও দিনে দিনে বাড়ছে। বর্তমানে ক্রেতা না থাকলেও ঈদের ১/২ দিন আগে খাটিয়া ও হোগলা বিক্রি শুরু হবে।

এ বিষয়ে কয়েক জন ক্রেতার সঙ্গে কথা হলে তারা জানান, প্রতি বছর ঈদ এলেই কয়েক গুন বেড়ে যায় খাটিয়া, হোগলা, চাপাতি, চাকু- ছুড়িসহ অন্যান্য প্রয়োজনিয় পন্যের দাম। সাধারনত যে চাকু বিশ থেকে ত্রিশ টাকা তা ঈদে ষাট থেকে আশি টাকা দিয়ে কিনতে হয়। তাই পুরাতন দা-বটি যত্ন করে রেখে দিয়েছি। ঈদের একদিন আগে ধার করে নিলেই হবে নতুন কেনার প্রয়োজন নেই।



সদ্য সংবাদ ডেস্কঃ  
মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলার পারিল শাখার সদ্য বরখাস্তকৃত এবি ব্যাংক কর্মকর্তা ফয়সাল আলম সিহাব(২৪) প্রতারণার মাধ্যমে ১কোটি ৩০ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়।তিনি শিক্ষানবিশ অফিসার হিসেবে কর্মরত ছিলেন।
পরে প্রতারণাকৃত ৩৫ লাখ ৭৮ হাজার টাকাসহ ফয়সাল আলম সিহাবকে গ্রেফতার করে সিআইডি।

সোমবার(২৭ জুলাই) সকাল সাড়ে ১১ টার দিকে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ( সিআইডি) এর মানিকগঞ্জের বিশেষ পুলিশ সুপার মীর্জা আব্দুল্লাহেল বাকী সাংবাদিকদের বিষয়টি নিশ্চিত করেন। এসময় তিনি বলেন, অপেশাদারি কার্যকলাপের জন্য ৫ জুলাই দায়িত্ব থেকে ফয়সালকে বরখাস্ত করে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ। বিষয়টি গোপন রেখে এর দুই দিন পরে ব্যাংকের অন্য কর্মকর্তার আইডি ও পাসওয়ার্ড ব্যবহার করে এবি ব্যাংকের উত্তরা শাখার একটি ভূয়া এ্যাকাউন্টে ১ কোটি ৩০ লাখ টাকা জমা করেন তিনি।
এক সহযোগীর মাধ্যমে সেখান থেকে ৫০ লাখ টাকা নগদ উত্তোলন এবং৭৮ লাখ ৫০ হাজার টাকা আরটিজিএস এর মাধ্যমে গাড়ি বিক্রেতার এ্যাকাউন্টে দিয়ে দুইটি নতুন গাড়ি ক্রয় করে ফয়সাল।

 প্রতারণার মাধ্যমে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার বিষয়টি টের পেয়ে ১০ জুলাই সিংগাইর থানায় ফয়সালসহ চারজনকে আসামি করে অভিযোগ করেন এবি ব্যাংকের পারিল শাখার ব্যবস্থাপক। মামলাটি তদন্ত দায়িত্ব পেয়ে সিআইডি কর্মকর্তা তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে ক্রয়কৃত নতুন গাড়ি দুইটি ঢাকার ঝিগাতলা থেকে উদ্ধার করেন। আর এই কাজে সহায়তার জন্য একইদিনে গ্রেফতার করা হয় মুত্তাকিন আহমেদ সিয়াম(২২) নামের ফয়সালের এক বন্ধুকে। এরই ধারাবাহিকতায়২৬ জুলাই রাতে সিংগাইরের নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করা হয় প্রধান আসামি ফয়সালকে।এসময় তার বাড়ি থেকে উদ্ধার করা হয় ৩৫ লাখ ৭৮ হাজার টাকা বাকি টাকা উদ্ধার এবং প্রতারণার সাথে জড়িত সকল ব্যক্তিকে গ্রেফতারের অভিযান চলমান রয়েছ। আর ফয়সালকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানোর প্রস্ততি চলছে বলে জানান সিআইডির পুলিশ সুপার মীর্জা আব্দুল্লাহেল বাকী।

সদ্য সংবাদ ডেস্কঃঃ
  সরকার নির্দেশিত, সোনারগাঁও উপজেলায় কর্মরত সকল গ্রাম পুলিশদের মাঝে পোশাক ও ব্যবহার্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। 
বৃহস্পতিবার (৩০-৭-২০২০) সকাল ১১ টায় উপজেলা পরিষদ অডিটরিয়ামে এ কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হয়।গ্রাম পুলিশের প্রত্যেক সদস্যর মাঝে পোশাক,জুতো ও ছাতা বিতরণ শেষে বৃক্ষ রোপন করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত  ছিলেন, নারায়গঞ্জ জেলা প্রশাসক মোঃ জসিম উদ্দিন মিয়া।


সোনারগাঁও উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আতিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন, সোনারগাঁও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন, সোনারগাঁও উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভুমি) আল-মামুন।

নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোঃ জসিম উদ্দিন মিয়া বলেন, জাতির পিতার স্বপ্নের বাংলাদেশ গড়তে সবাই এক হয়ে কাজ করতে হবে।
বৈশ্বিক মহামারী করোনাভাইরাসের মোকাবেলা করতে অনেক দেশের প্রধানমন্ত্রী হিমসিম খাচ্ছে কিন্তু আমার দেশের প্রধানমন্ত্রী থেমে থাকেনি। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে যারা ভালো কাজ করছেন তাদের নিয়ে সমালোচনা না করে উৎসাহ দিন। তা না হলে ভালো কাজে মানুষ খোঁজে পাবেন না।

সদ্য সংবাদ ডেস্কঃ 
এবার ঈদুল আজহার নামাজ পড়তে হবে মসজিদে।এসময় একে অপরের সঙ্গে কোলাকুলি ও হাত মেলাতে পারবেন না। ধর্ম মন্ত্রণালয়ের জারি করা নির্দেশাবলিতে এ নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।
সম্প্রতি জারি করা নির্দেশনায় বলা হয়েছে, বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবজনিত প্রেক্ষাপটে শর্তসাপেক্ষে ঈদুল ফিতরের নামাজের জামাত খোলা মাঠ/ঈদগায়ে আদায় না করে মসজিদে আদায় করা হয়। তারই ধারাবাহিকতায় ঈদুল আজহার নামাজ আদায় সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে আলোচনা করতে ১২ জুলাই দেশের শীর্ষস্থানীয় আলেম-ওলেমা এবং সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও বিভাগের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সভা করেন। ওই সভায় পবিত্র ঈদুল আজহার নামাজ মসজিদে আদায় করার সিদ্ধান্ত হয়।

শর্তগুলো হল- ১. করোনাভাইরাস পরিস্থিতিজনিত কারণে মুসল্লিদের জীবন ঝুঁকি বিবেচনা করে এ বছর ঈদুল আজহার জামাত ঈদগাহ বা খোলা জায়গার পরিবর্তে কাছের মসজিদে আদায় করতে হবে। প্রয়োজনে একই মসজিদে একাধিক জামাত আদায় করা যাবে।
২. জামাতের সময় মসজিদে কার্পেট বিছানো যাবে না। নামাজের পূর্বে মসজিদ জীবাণুনাশক দ্বারা পরিষ্কার করতে হবে। মুসল্লিরা প্রত্যেকে নিজ নিজ দায়িত্বে জায়নামাজ নিয়ে আসবেন।
৩. প্রত্যেককে বাসা থেকে অজু করে মসজিদে আসতে হবে এবং অজু করার সময় কমপক্ষে ২০ সেকেন্ড সাবান দিয়ে হাত ধুতে হবে।
৪. মসজিদে অজুর স্থানে সাবান/হ্যান্ড স্যানিটাইজার রাখতে হবে।
৫. মসজিদের প্রবেশদ্বারে হ্যান্ড স্যানিটাইজার/হাত ধোয়ার ব্যবস্থাসহ সাবান-পানি রাখতে হবে।
৬. জামাতে আগত মুসল্লিদের অবশ্যই মাস্ক পরে আসতে হবে। মসজিদে সংরক্ষিত জায়নামাজ ও টুপি ব্যবহার করা যাবে না।
৭. নামাজ আদায়ের সময় কাতারে দাঁড়ানোর ক্ষেত্রে সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে দাঁড়াতে হবে এবং এক কাতার অন্তর অন্তর কাতার করতে হবে।
৮. শিশু, বৃদ্ধ, যে কোনো ধরনের অসুস্থ ব্যক্তি এবং অসুস্থদের সেবায় নিয়োজিত ব্যক্তি জামাতে অংশগ্রহণ করবেন না।
৯. স্বাস্থ্যসেবা বিভাগ, স্থানীয় প্রশাসন এবং আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণকারী বাহিনীর নির্দেশনা অবশ্যই অনুসরণ করতে হবে।
১০. জামাত শেষে কোলাকুলি এবং পরস্পর হাত মেলানো থেকে বিরত থাকতে হবে।
১১. নামাজ শেষে খতিব ও ইমামরা মহান রাব্বুল আলামিনের দরবারে দোয়া চাইবেন।
১২. খতিব, ইমাম, মসজিদ পরিচালনা কমিটি ও স্থানীয় প্রশাসনকে বিষয়গুলো বাস্তবায়ন নিশ্চিত করতে হবে।
১৩. কোরবানির ক্ষেত্রে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা যথাযথভাবে পালন করতে হবে। স্থানীয় প্রশাসন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, জনপ্রতিনিধি, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং সংশ্লিষ্ট মসজিদের পরিচালনা কমিটি এসব নির্দেশনা বাস্তবায়ন করবেন।

 সদ্য সংবাদ ডেস্কঃ  মহামারী করোনার কারণে আগামী ৬ আগস্ট শেষ হচ্ছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি। তবে করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়ায় চলমান ছুটি ৩১ আগস্ট পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। 

বুধবার (২৯ জুলাই) শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. আবুল খায়ের স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

জানা গেছে, সেপ্টেম্বরে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার প্রস্তুতি হিসেবে সিলেবাস সংক্ষিপ্ত করার কাজ শুরু করা হয়েছে। শিক্ষার্থীর বয়স ও শ্রেণি অনুযায়ী জ্ঞান অর্জনের বিষয় সামনে রেখে সিলেবাস সংশোধন করা হবে।

করোনার কারণে চার মাস ধরে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ।চলতি বছরের মার্চে এইচএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও করোনার কারণে সেটিও শুরু করা যায়নি।

আগামী নভেম্বরে পিইসি-ইবতেদায়ি এবং জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষা আয়োজন হওয়ার কথা থাকলেও এসব পরীক্ষা পিছিয়ে নিয়ে ডিসেম্বরে আয়োজন করা হতে পারে। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ও মৃত্যু অব্যাহত থাকায় শিগগিরই খুলছে না শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো। করোনা পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক না হলে সেপ্টেম্বরে খুলতে না পারলে শিক্ষাবর্ষ দুই মাস বাড়ানো হতে পারে।

স্বাস্থ্যবিধি মেনে পবিত্র ঈদুল আযহা উদযাপন করতে অনুরোধ জানিয়েছেন জাপান আওয়ামী লীগ'র যুগ্ম আহ্বায়ক মাজহারুল ইসলাম মাসুম ।

ঈদ মানে আনন্দ,ঈদ মানে খুশি। 

সদ্য সংবাদ ডেস্কঃ  পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে নারায়ণগঞ্জ ও সোনারগাঁও সহ, দেশ ও দেশের বাহিরে সর্বস্তরের জনগনকে ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা ও আন্তরিক অভিনন্দন মোবারকবাদ জানিয়েছেন জাপান আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মাজহারুল ইসলাম মাসুম।    

এক শুভেচ্ছা বার্তায় তিনি বলেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে পবিত্র ঈদুল আযহা উদযাপন করতে হবে। শান্তিপূর্ন এবং সৌহার্দ্যময় সমাজ গঠনে ঈদুল আযহার আবেদন চিরন্তন। প্রতি বছর ঈদুল আযহা ত্যাগের মহিমা নিয়ে আমাদের সামনে আসে।শুধু পশু কোরবানি দিলেই হবে না, সাথে মনের পশুত্বও ত্যাগ করতে হবে।  প্রতিবছর উচ্ছ্বাস, উদ্ভাস, আনন্দ, খুশি আর ভালোবাসার সমারোহ নিয়ে আমাদের মাঝে সমাগত হয় পবিত্র ঈদুল আযহা।

ঈদ সব শ্রেণী পেশার মানুষের মধ্যে গড়ে তোলে সম্প্রীতি, সৌহার্দ ও ঐক্যের বন্ধন উল্লেখ করে ধনী, গরীব নির্বিশেষে সবাই এক কাতারে শামিল হয় এবং ঈদের আনন্দকে ভাগাভাগি করে নেয়। ঈদের আনন্দ বিরাজমান হউক প্রত্যেক ঘরে ঘরে এবং ঈদুল আযহার শিক্ষা আমাদেরকে সুন্দর ও সমৃদ্ধ সমাজ গঠনে উদ্বুদ্ব করুক এ প্রত্যাশা করি। সেই সাথে সবার জন্য আনন্দপূর্ণ ও কল্যাণকর মঙ্গল বয়ে আনুক পবিত্র ঈদুল আযহায় এটাই কামনা করি। 

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে সরকার নির্দেশিত যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি সবাই মেনে চলি ও নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখি। আসুন সকলে সতর্ক থাকি এবং বেশী বেশী আল্লাহর কাছে দোয়া চাই যাতে আল্লাহ আমাদেরকে এই গজব থেকে মুক্তি দেন। সকলের সুস্বাস্থ্য কামনা ও সকলকে আমন্ত্রন জানিয়ে ঈদের শুভেচ্ছাসহ ঈদ মুবারক জানাই।

আল্লাহ সবার মঙ্গল করুক।
আমীন।  

সদ্য সংবাদ ডেস্কঃঃ

ঈদ মানে আনন্দ, ঈদ মানে খুঁশি। ঈদুল আয্হা উপলক্ষ্যে সোনারগাঁও উপজেলার সর্বস্তরের সবাইকে প্রাণঢালা শুভেচ্ছা ও শুভকামনা জানানোর পাশাপাশি স্বাস্থ্যবিধি মেনে শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে এবছর ঈদুলআযহা উদযাপনের অনুরোধ জানিয়েছেন সাবেক ছাত্রলীগ ও বর্তমান  কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ নেতা এ এইচ এম মাসুদ দুলাল।

এক বিবৃতিতে তিনি বলেন পবিত্র ঈদুলআযহা উপলক্ষ্যে সোনারগাঁও উপজেলার সর্বস্তরের সকলকে এবং সমগ্র মুসলিম উম্মাহর প্রতি প্রাণঢালা শুভেচ্ছা ও আন্তরিক অভিনন্দন জ্ঞাপন করছি। তার পাশাপাশি আত্মশুদ্ধি ও আত্মত্যাগের মাধ্যমে আল্লাহর নৈকট্য হাসিল করাই আমাদের কাম্য।

 পশু কোরবাণীর মাধ্যমে প্রত্যেকের মনে ত্যাগের মানসিকতা জাগ্রত হবে এবং মনের পশুত্ব বিলীন হবে বলে আশা রাখছি। হিংসা বিদ্বেষ ও ধনী-গরীবের ভেদাভেদ ভুলে সবাই নিরাপদে ও সুস্থ্যতার সহিত ঈদ উদযাপন করবে বলে আমি দোয়া কামনা করছি।

আসুন করোনা প্রতিরোধে অতিরিক্ত কেনাকাটা ও ঘুরাঘুরি পরিহার করে সকলে সরকার নির্দেশিত স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলি এবং আল্লাহর কাছে বেশী বেশী দোয়া করার মাধ্যমে এবছরের ঈদুলআযহা উদযাপন করি’।

ফতুল্লায় হেরোইনসহ মাদক ব্যবসায়ী পিংকি আক্তার গ্রেফতার।   

সদ্য সংবাদ ডেস্কঃ  
নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা থানাধীন দেলপাড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে নারী মাদক ব্যবসায়ী মোছাঃ পিংকি আক্তার (২২)কে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১১ ( সিপিএসসি)। 
মঙ্গলবার (২৮ জুলাই) বিকালে তাকে গ্রেফতার করা হয়। এসময় তার দখলে থাকা ১০ গ্রাম হেরোইন উদ্ধার করা হয়। 
বুধবার (২৯ জুলাই) র‌্যাব-১১ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ জসিম উদ্দীন চৌধুরী স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে র‌্যাব-১১ জানান, গ্রেফতারকৃত আসামী মোছাঃ পিংকি আক্তার এর বাড়ী মুন্সীগঞ্জ জেলার শ্রীনগর থানাধীন বালাসুর এলাকায়। সে দীর্ঘদিন ধরে ফতুল্লাসহ আশপাশের এলাকায় অভিনব পন্থায় নিষিদ্ধ মাদকদ্রব্য হেরোইন ক্রয়-বিক্রয় ও সরবরাহ করে আসছিল। জিজ্ঞাসাবাদে সে আরও স্বীকার করে যে, দীর্ঘদিন যাবৎ অবৈধভাবে সীমান্ত এলাকা দিয়ে অভিনব কায়দায় নিষিদ্ধ মাদকদ্রব্য হেরোইন বাংলাদেশে প্রবেশ করায় এবং বিশেষ কৌশলে পরিবহন করে নিয়ে এসে ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে সরবরাহ করে আসছে। মাদক ব্যবসাই তার একমাত্র পেশা।

গ্রেফতারকৃত আসামীর বিরুদ্ধে নারায়ণগঞ্জ জেলার ফতুল্লা থানায় আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন।

চাঁদপুর প্রতিনিধিঃ
 
 বুধবার (২৯ জুলাই) সকাল সাড়ে ৮টায় চাঁদপুর-কুমিল্লা আঞ্চলিক সড়কের হাজীগঞ্জ পৌর এলাকার মিঠানিয়া ব্রীজ সংলগ্নে অজ্ঞাত যুবকের লাশ পাওয়া যায়।যুবকের বয়স ৩০ বছর হবে।পুলিশ এসে মরদেহ উদ্ধার করে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন হাজীগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃ আলমগীর হোসেন রনি।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, সকাল সাড়ে ৮টায় ইকবাল মজুমদারের বালুমহালের ম্যানেজার মহিন উদ্দিন এসে মৃতদেহ দেখতে পায়। তিনি জানান, প্রতিদিন সন্ধ্যায় বালুমহাল বন্ধ করে চলে যাই।

সরজমিনে দেখা গেছে, ইকবাল মজুমদারের বালুমহলে এ ঘটনা ঘটে। মরদেহের পাশে তিনটি জুতা ও দুইটি মাস্ক রয়েছে।

পিবিআই পরিদর্শক মীর মাহবুবের নেতৃত্বে একটি দল ফিঙ্গার প্রিন্টের স্ক্যানার মেশিন নিয়ে ঘটনাস্থলে যান। সেখানে নিহতের আঙ্গুল মেশিনের উপরে রাখে। রাখার সঙ্গে সঙ্গে বেরিয়ে আসে নিহতের পরিচয়। জানা যায়, নিহতের নাম সোহেল (২৪),পিতার নাম আব্দুল কাদের,মাতা হাছিনা বেগম। বাড়ি হাজীগঞ্জ পৌর ৯নং ওয়ার্ড কংগাইশ (জামাল ড্রাইভারের বাড়ি। ছেলেটি পেশায় অটো চালক।

পরে লাশটি চাঁদপুর সদর হাসপাতালের মর্গে ময়নাতদন্তের জন্য প্রেরণ করা হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে বলে জানিয়েছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কাজী মো. আব্দুর রহিম।

তদন্তকারী সংস্থা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) চাঁদপুর পরিদর্শক মীর মাহবুব জানান, শুধু অজ্ঞাত লাশ নয়, কোন ব্যক্তির বিরুদ্ধে দেশের কোন থানায় মামলা বা জিডি আছে কিনা তাও জানা যাবে এই যন্ত্রের মাধ্যমে। এমনই অত্যাধুনিক এসব যন্ত্র হাল্কা ও সহজেই বহনযোগ্য। যন্ত্রটির মাধ্যমেই অজ্ঞাত লাশটির পরিচয় সফলভাবে শনাক্ত হয়েছে।

পুলিশ জানায়,যুবককে ইট দিয়ে আঘাত করা হয়েছে। হত্যাকান্ডের সাথে একাধিক ব্যক্তি জড়িত বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এছাড়া ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আফজাল হোসেন, অফিসার ইনচার্জ (ওসি), আলমগির হোসেন রনি, পুলিশ পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) আব্দুর রশিদ সহ পিবিআই, ডিবি সহ পুলিশ কর্মকর্তারা।


বাক্ষণবাড়িয়া প্রতিনিধিঃ     
ব্রাক্ষণবাড়িয়া জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাসুম বিল্লাহ ও তার সহযোগী এনাম হক (৩০) কে মাদকসহ গ্রেপ্তার করেছেন সরাইল থানার এ এস আই মো. আলাউদ্দিন। পুলিশের হাত থেকে ছুটে যেতে প্রথমে গালমন্দ ও পরে কিল ঘুষি দেওয়ার অভিযোগ ওঠেছে ছাত্রলীগ নেতার বিরূদ্ধে। 

গতকাল মঙ্গলবার বিকাল ৪টার দিকে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের কুট্রাপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে এ ঘটনা ঘটে। পরে অফিসার ইনচার্জ (ওসি) গিয়ে মাসুমকে থানায় নিয়ে আসেন। মূহুর্তের মধ্যে থানার ভেতরে ও বাহিরে মাসুমের শতাধিক সমর্থক অবস্থান নেন। ছবি ওঠানোর জন্য থানার ডিএসবিকে প্রকাশ্যে গালমন্দ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে মাসুমের ছোট ভাই নাঈম বিল্লাহ’র বিরূদ্ধে। বিকাল ৪টায় গ্রেপ্তার করলেও সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত মাসুমের বিষয়ে মুখ খুলেননি সরাইল থানা পুলিশ। সন্ধ্যা ৭টার পর জানিয়েছেন মামলা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী স্থানীয়রা জানায়, মাদকের নিয়মিত অভিযানে পোশাকের উপর পাঞ্জাবী পড়ে সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে মহাসড়কের কুট্রাপাড়া এলাকায় দায়িত্ব পালন করছিলেন এএসআই মো. আলাউদ্দিন। সন্দেহ হলে আরোহীসহ দুইজনের একটি কাল রং-এর মটরবাইককে দাঁড়াতে সিগনাল দেন। মটরবাইকের চালক মাসুম বিল্লাহ নিজের পরিচয় দিয়ে চলে যাওয়ার চেষ্টা করেন। আলাউদ্দিন তাতে বাধা দেন। দু’জনের মধ্যে বাকবিতন্ডা শুরূ হয়। এক পর্যায়ে মাসুম বিল্লাহর দেহ তল্লাশি করে ফেন্সিডিল উদ্ধার করে পুলিশ। মাদক বহনের দায়ে গ্রেপ্তার করতে চাইলে পুলিশকে কিলঘুষি মারতে থাকে মাসুম। এ সময় ঘটনাস্থলে শতাধিক লোক জড়ো হয়। সরাইল থানার অফিসার ইনচার্জ নাজমুল হোসেন গিয়ে মাসুমকে থানায় নিয়ে আসেন। মূহুর্তের মধ্যে থানায় হাজির হন সরাইল উপজেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রোকেয়া বেগম, ভাইস চেয়ারম্যান মো. আবু হানিফ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজের সাবেক ভিপি মো. হাসান ও জেলা ছাত্রলীগের নেতা কর্মী ও সমর্থকরা। থানার বাহিরে ভেতরে মটরবাইক সহ শতাধিক সমর্থক অবস্থান নেয়। 

বিকাল সাড়ে ৪ টার দিকে থানায় গিয়ে দেখা যায় ওসি’র কক্ষে বসে কথা বলছেন মাসুম। কিছুক্ষণ পর মাসুমকে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নিয়ে যান পুলিশ পরিদর্শকের কক্ষে। সেখান থেকে তড়িৎ তাকে নিয়ে যান এসআইদের বসার কক্ষে। বিকাল ৫টার দিকে জেলা থেকে অতিরিক্ত পুলিশ বহন করে একটি গাড়ি থানার ভেতরে প্রবেশ করে। এএসআই মো. আলাউদ্দিন বলেন, মাসুমের মটরবাইককে সিগনাল দেওয়া মাত্র আমাকে গালমন্দ শুরূ করে। আটকের পর তার দেহ থেকে ৬ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধার করি। আমার কাছ থেকে ছুটে যেতে আমাকে কিলঘুষি মারতে থাকেন মাসুম। পরে ওসি স্যারের সহায়তায় তাকে থানায় নিয়ে আসা হয়। 

পুলিশের হেফাজতে থাকা মাসুম বিল্লাহ নিজেকে নির্দোষ দাবী করে বলেন, আমি পুলিশকে মারধর করিনি। তবে একটু বার্গেনিক হয়েছে। সরাইল সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আনিছুর রহমান বলেন, মাদক দ্রব্য বহন ও পুলিশের কর্তব্য কাজে বাধা দেওয়ার অভিযোগে মাসুম বিল্লাহর বিরূদ্ধে সরাইল থানায় মামলা হয়েছে। এর আগেও তার বিরূদ্ধে সদর মডেল থানায় ২টা ও বিজয়নগর থানায় ১টি মোট ৩টি মামলা রয়েছে। তার ব্যবহৃত মটরবাইকটি জব্দ করা হয়েছে।

সদ্য সংবাদ ডেস্কঃ 

নারায়ণগঞ্জ বন্দরে ডাকাতি প্রস্তুতি কালে স্থানীয় জনতার সহায়তায় ধারালো অস্ত্রসহ ৪ ডাকাতকে আটক করেছে বন্দর থানার টহলরত পুলিশ। ওই সময় পুলিশ ডাকাতি কাজে ব্যবহারকৃত ২টি ছোরা, ১টি দা, ৩টি লোহার রড ও ১টি শাবলসহ ডাকতদের বহনকৃত একটি পিকআপ গাড়ী জব্দ করে। মঙ্গলবার রাত ২টায় বন্দর থানার দক্ষিন লক্ষনখোলাস্থ বাংলালিংক টাওয়ারের সামনে ডাকাতির প্রস্ততি কালে তাদের আটক করা হয়। এ ব্যাপারে বন্দর থানার উপ-পরিদর্শক মোহাম্মদ ফয়েজ বাদী হয়ে বন্দর থানায় মামলা দায়ের করেন।

আটককৃত ডাকাতরা হলো ঢাকা ডিএমপি রামপুরা থানার ১২২/৪ পূর্বরামপুরা মোল্লাবাড়ী এলাকার জাহাঙ্গীর আলমের ছেলে আবু কাশেম তুষার (২৪), একই থানার ১০৮ নং মধ্য বাড্ডা পোষ্ট অফিস গলী বেপারী টাওয়ার এলাকার আব্দুর রহমান শেখের ছেলে মিজান (২৮), মুন্সিগঞ্জ জেলার শ্রীনগর এলাকার শিমপাড়া এলাকার ইদ্রিস মিয়ার ছেলে সোহেল (২৫) ও কুমিল্লা জেলার হোমনা থানার মনিরুল ইসলামের ছেলে আবু সাঈদ (৩০)।

এ ব্যাপারে বন্দর থানার অফিসার ইনর্চাজ রফিকুল ইসলাম গনমাধ্যমকে জানান, মঙ্গলবার রাত ২টায় বন্দর থানার দক্ষিন লক্ষনখোলা বাংলালিংক টাওয়ারে ডাকাতি চেষ্টা চালায় আটককৃতরা। ওই সময় স্থানীয় জনতা উল্লেখিত ৪ ডাকাতকে আটক করে গনপিটুনী দেয়। পরে থানার টহররত পুলিশ সংবাদ পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে এসে ডাকাতদের পুলিশের হেফাজতে নেয়। পরে টহলরত পুলিশ আটকৃতদের কাছ থেকে ডাকাতি কাজে ব্যবহারকৃত ধারালো অস্ত্র সহ ঢাকা মেট্রো ন ১৫-০০৬২ নাম্বারের একটি পিকআপ গাড়ী জব্দ করে থানায় নিয়ে আসে।

এ ব্যাপারে বন্দর থানায় মামলা রুজু হয়েছে এবং আটককৃত ডাকাতদের মঙ্গলবার দুপুরে ডাকাতি মামলায় আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

 কুড়িগ্রাম সংবাদদাতাঃ
  

 শুরু থেকেই করোনাবিস্তার রোধে বাংলাদেশ পুলিশ সম্মুখযোদ্ধা হিসাবে নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে নাগরিক সেবায় অগ্রপথিক হয়ে কাজ করে যাচ্ছে।

গতানুগতিক পুলিশিং প্যাটার্নের বাইরে প্রযুক্তি, শুদ্ধাচার ও উদ্ভাবনের আলোকে নাগরিকদের সেবায় বাংলাদেশ পুলিশের ইউনিটসমূহ নানাবিধ কার্যক্রম হাতে নিয়ে থাকে। তেমনি একটি উদ্ভাবনী উদ্যোগ মাস্ক ইজ মাস্ট। 

কুড়িগ্রামের সকল নাগরিক যাতে যে কোনো জনসমাগমে মাস্ক ব্যবহার করে, সেটির প্রায়োগিক উপযোগিতা নিশ্চিত করতে কুড়িগ্রাম জেলা পুলিশ হাতে নিয়েছে মাস্ক আপ কুড়িগ্রাম ক্যাম্পেইন।

 সেই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ পুলিশ লোগো সম্বলিত এক হাজার পিস মাস্ক পথচারী, ব্যবসায়ী, রিকশাওয়ালা, অটো, বাস চালক থেকে শুরু করে ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে বিতরণ করে। অধিকিন্ত, মাইকিং, র‌্যালি, 
জনসচেতনামূলক সভা ধারাবাহিকভাবে অব্যাহত রাখা হয়েছে। 
করোনা বিস্তাররোধে ছোট ছোট অভিনব উদ্ভাবনী প্রচেষ্টাসমূহ কুড়িগ্রামের মানুষকে করেছে ইতিবাচক জীবনবোধে প্রত্যয়ী, করেছে আশাবাদী।

সদ্য সংবাদ ডেস্কঃঃ
  
রূপগঞ্জ উপজেলার তারাব পৌরসভার সুলতানবাগ এলাকা থেকে নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের সক্রিয় সদস্য মো. সবুজ শেখকে (২৬) আটক করেছে পুলিশের অ্যান্টি টেররিজম ইউনিট (এটিইউ) । 

সোমবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাকে আটক করা হয় বলে এটিইউর এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

আটক সবুজ ফরিদপুর জেলার শালথা থানার লক্ষণদিয়া গ্রামের মোস্তফা শেখের ছেলে। 

বিজ্ঞতিতে বলা হয়েছে, এটিইউ সদস্যরা সবুজকে তল্লাশি করে জঙ্গীবাদী কর্মকাণ্ডে ব্যবহৃত মোবাইল ফোন উদ্ধার করেছে। জিজ্ঞাসাবাদে সবুজ নিজেকে আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের সক্রিয় সদস্য বলে স্বীকার করেছেন। 

বিজ্ঞতিতে আরও বলা হয়, সবুজ অনলাইনে ফেসবুক আইডি (‘Sotter Shndhane’ ) ব্যবহার করে আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের দাওয়াতী ও প্রশিক্ষণ কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছিলেন। তিনি ‘লোন উলফ মুজাহিন’ গ্রুপে জঙ্গীবাদী প্রচার-প্রচারণা, জননিরাপত্তা বিপন্ন করে ত্রাস সৃষ্টি ও জিহাদের প্রস্তুতি নিয়েছিলেন। 

সবুজের বিরুদ্ধে রূপগঞ্জ থানায় সন্ত্রাসবিরোধী আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। মঙ্গলবার আসামিকে ১০ দিনে রিমান্ড চেয়ে নারায়ণগঞ্জ কোটে চালান করে দেওয়া হয়েছে। আদালত আগামী ৫ আগস্ট তার রিমান্ড শুনানী ধার্য করে আসামিকে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত।


সদ্য সংবাদ ডেস্কঃ  
নারায়ণগঞ্জ জেলার সিদ্ধিরগঞ্জে আসন্ন ঈদকে সামনে রেখে অপ্রীতিকর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে পুলিশের বিশেষ অভিযানে ডাকাত, ছিনতাইকারী, মাদক ব্যবসায়ী ও প্রতারকসহ ১২জন অপরাধীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। 

সোমবার (২৭ জুলাই) দিবাগত রাতে সিদ্ধিরগঞ্জের বিভিন্ন এলাকা থেকে ৬ জন ছিনতাইকারী, ডাকাতি প্রস্তুতিকালে দেশীয় অস্ত্রসহ ৪ ডাকাত, ১০ লিটার চুলাই মদ ও ৬০ পিস ইয়াবাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী এবং সরকারী গোয়েন্দা সংস্থা এনএসআই সদস্য পরিচয় দিয়ে প্রতারণার অভিযোগে একজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এসময় তাদের কাছ থেকে দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করা হয়।
গ্রেফতারকৃতরা হলো, সাগর (২১), নিয়ামত উল্লাহ ওরফে ভাগ্নে রুমান ওরফে শুভ (২৮), নুর মোহাম্মদ হোসেন (১৮), রিপন (২৭), শহিদ (৫০), সোহেল রানা (২৯), কামাল (২৫), সবুজ (২৭), আরিফ (৩২), বাবুল ওরফে বাবু (৪৩) রিপন হোসেন (৩৫) ও শাহজাহান (৪৬)।

সিদ্ধিরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো:  কামরুল ফারুক বলেন, আসন্ন ঈদকে সামনে রেখে পুলিশ সুপারের নির্দেশে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশ গতকাল গভীর রাতে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে বিভিন্ন এলাকা থেকে ১২ জনকে করেছে। তাদের বিরুদ্ধে পৃথক পৃথক মামলা দায়ের করা হয়েয়ে। পুলিশ সুপারের নির্দেশক্রমে আমরা আমাদের অভিযান অব্যাহত রাখবো যাতে সকলে শান্তিপূর্ণভাবে ঈদ করতে পারে এবং বিভিন্ন পশুর হাটগুলোতে যেন কোন রকম অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে। সে লক্ষে সার্বক্ষণিক পুলিশ তৎপর রয়েছে।

সদ্য সংবাদ ডেস্কঃঃ    
পুর্ব শক্রুতার জের ধরে এবং বাড়ীর পাশে মাছ ধরার ভেসাল পাতাকে কেন্দ্র করে মাদারীপুরের রাজৈরে বৃদ্ধ রুহিদাস বাড়ৈকে (৭৫) পিটিয়ে হত্যা করেছে প্রতিপক্ষ প্রভাশালী সুকদেব বৈদ্য ও সমীর বৈদ্য। ঘটনাটি ঘটেছে  সোমবার সন্ধ্যা রাতে  উপজেলার চৌয়ারীবাড়ী গ্রামে। নিহত রুহিদাস একই গ্রামের মৃতঃ রুপচাঁদ বাড়ৈর ছেলে। এসময় রুহিদাসের নাতী জীবন বৈদ্য (১৫) আহত হয়। রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

 পুলিশ, এলাকাবাসী ও স্বজনরা জানায়, সোমবার সন্ধ্যায় রাজৈর উপজেলার চৌয়ারীবাড়ী গ্রামে  রুহিদাসের জায়গায় প্রতিপক্ষ সুকদেব ও সমীর  ভেসাল পাততে গেলে রুহিদাসের নাতী জীবন বাড়ৈর বাঁধা দেয়। কথাকাটাকাটি একপর্যায়ে সুকদেব বৈদ্য ও সমীর বৈদ্য মিলে জীবন বাড়ৈকে বেদম মারপিট করে। এসময় তার নাতী জীবন বাড়ৈর চিৎকারে রুহিদাস এগিয়ে গেলে তাকে লোহার সাবল দিয়ে আঘাত করলে মারাত্মক আহত হয়। মুমুর্ষ অবস্থায় রুহিদাস বাড়ৈকে  রাত ১০টার দিকে প্রথমে রাজৈর হাসপাতাল এবং পরে ১১টার দিকে আশংকা অবস্থায় ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে  সে মারা যায় । ঘটনার পর পর সুকদেব বৈদ্য ও সমীর বৈদ্য এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যায়।  
অফিসার ইনচার্জ শেখ সাদী প্রাপ্ত তথ্য নিশ্চিত করে জানান,অভিযুক্ত সুকদেব বৈদ্য (৪৫) ও সমীর বৈদ্য (৪০) কে গ্রেফতারে সাঁড়াশী অভিযান অব্যাহত আছে।



মামুন আহমেদ জয়,আড়াই হাজার প্রতিনিধিঃ

 নারায়নগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলার উচিৎপুরা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নাজিমুদ্দীন ও একই ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ড মেম্বার মোহাম্মদ আলী গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। সংঘর্ষে নারী সহ অন্তত ১০ জন আহত হয়েছে।
মঙ্গলবার (২৮-৭-২০২০) সকালে আতাদি গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

এলাকাবাসী জানায় পুর্ব শত্রুতার জের ধরে সকাল ৯ টার দিকে মোহাম্মদ আলী মেম্বারের নেতৃত্বে জয়নাল,কাসেম সহ প্রায় শতাধীক লোকজন টেটা,বল্লম সহ দেশীয় শস্য অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে নাজিম চেয়ারম্যান ও তার অনুসারীদের বাড়িতে হামলা চালায়। তাদের হামলায় চেয়ারম্যানের অনুসারীদের মধ্যে সোহরাব (৩০), রেখা (৩৬),সজিব (২৫), হানিফা ৪৫),রাহিমা (৪২), আলামিন (৪০), জসিম (৫৫) আহত হন।

স্বজনরা আহতদের উদ্ধার করে সোহরাব এবং রেখাকে আড়াইহাজার উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি করেন। অন্যদের স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা করান। সংঘর্ষ চলাকালীন সংবাদ পেলে আড়াইহাজার থানা পুলিশের এস,আই রোকন সঙ্গীয় ফোর্স ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন। এসময় মোহাম্মদ আলী মেম্বারের গ্রুপের কাছে জিম্মি চেয়ারম্যানের ভাতিজা আশিককে উদ্ধার করে পুলিশ।  

ওই সংঘর্ষের ঘটনায় রুবেলদের দ্বিতল ভবনের  জানালার থাই গ্লাস ভাংচুর সহ চেয়ারম্যান এবং সোহরাবের বাড়িতে ভাংচুর চালায় সন্ত্রাসীরা। আতাদী গ্রামের মাতবরের ছেলে হাসিম জানান, মোহাম্মদ আলী মেম্বার, জয়নাল ও কাসেম এ তিনজন লোকের কাছে এলাকাবাসী জিম্মি। তারা এলাকায় চাঁদাবাজিতে ওস্তাদ। ইতিমধ্যে জোর করে আতাদী গ্রামের আসাবদ্দীনের ৯০ শতক জমি দখল করে মাছের খামার করেছে তারা। 

চেয়ারম্যান নাজিমুদ্দীন জানান,সন্ত্রাসীরা  হামলা করে চলে যাওয়ার সময় আমাকে এবং আমার ভাই জসিম উদ্দীনকে প্রান নাশের হুমকি প্রদান করে।

এ ব্যপারে আড়াইহাজার থানার ওসি মোঃ নজরুল ইসলাম জানান ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


সদ্য সংবাদ ডেস্কঃ   

নারায়ণগঞ্জ জেলার বন্দর থানাধীন ফরাজীকান্দা বাজার ও মদনগঞ্জ বাসস্ট্যান্ডে চাঁদা আদায়কালে দুই জন চাঁদাবাজ’কে হাতে-নাতে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১১। 
গ্রেফতারকৃতরা হলেন মোঃ আমিনুল ইসলাম (২০) মোঃ মাহাবুব মোল্লা (২২) । 
সোমবার (২৭ জুলাই ) বিকালে র‌্যাব-১১, সিপিএসসি এর অভিযানে তাদের গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তাদের দখলে থাকা চাঁদাবাজির নগদ ২,৮০০/- টাকা ও চাঁদা আদায়ের ০৩টি রসিদ বহি উদ্ধার করা হয়। মঙ্গলবার ( ২৮ জুলাই) র‌্যাব-১১ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ জসিম উদ্দীন চৌধুরী স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

মোঃ জসিম উদ্দীন চৌধুরী জানান, গ্রেফতারকৃত আসামীদ্বয়’কে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় একটি চাঁদাবাজ চক্র দীর্ঘদিন ধরে বন্দর থানাধীন মদনগঞ্জ ও ফরাজীকান্দা এলাকায় বাসস্ট্যান্ডে পণ্যবোঝাই ট্রাক, কাভার্ডভ্যান ও মালবাহী যানবাহনের চালকদের কাছ থেকে ভয়ভীতি ও হুমকি প্রদর্শন করে জোরপূর্বক প্রতিদিন প্রতি ট্রাক থেকে ১০০/- টাকা থেকে ১৫০/- টাকা করে চাঁদা আদায় করে আসছে। নারায়ণগঞ্জের বন্দর থানাধীন ফরাজীকান্দা এলাকায় বাসস্ট্যান্ডে ট্রাক থেকে চাঁদা আদায়কালে মোঃ আমিনুল ইসলাম’কে হাতে-নাতে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তার দখল হতে চাঁদাবাজির নগদ ১,৬৫০/- টাকা ও চাঁদা আদায়ের ০২টি রসিদ বহি জব্দ করা হয়। পরবর্তীতে তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে বন্দর থানাধীন মদনগঞ্জ এলাকায় বাসস্ট্যান্ডে ট্রাক থেকে চাঁদা আদায়কালে অপর চাদাঁবাজ মোঃ মাহাবুব মোল্লা’কে হাতে-নাতে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় মোঃ মাহাবুব মোল্লা’র দখল হতে চাঁদাবাজির নগদ ১,১৫০/- টাকা ও চাঁদা আদায়ের ০১টি রসিদ বহি জব্দ করা হয়। গ্রেফতারকৃত ও পলাতক আসামীরা পরস্পর যোগসাজসে দীর্ঘদিন যাবৎ স্থানীয় ইজারাদার মোঃ নাজিম উদ্দিন এর প্রত্যক্ষ প্ররোচনা ও মদদে নারায়ণগঞ্জ জেলার বন্দর থানাধীন ফরাজীকান্দা ও মদনগঞ্জ এলাকায় চলাচলরত পণ্যবোঝাই ট্রাক, কাভার্ডভ্যান ও মালবাহী যানবাহনের চালকদের কাছ থেকে ভয়ভীতি ও হুমকি প্রদর্শন করে জোরপূর্বক প্রতিদিন প্রতি ট্রাক থেকে ১০০/- টাকা থেকে ১৫০/- টাকা করে অবৈধভাবে চাঁদা আদায় করে ।

 ইজারাদার মোঃ নাজিম উদ্দিন নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন হতে মদনগঞ্জ বাসস্ট্যান্ড থেকে চাঁদা আদায়ের জন্য ইজারা নিলেও তার প্রত্যক্ষ প্ররোচনা ও মদদে গ্রেফতারকৃত আসামীদ্বয় পরস্পর যোগসাজশে মদনগঞ্জ বাসস্ট্যান্ডের আনুমানিক ১ কিলোমিটার সামনে ফরাজীকান্দা বাজারে সড়ক ও জনপথের রাস্তায় যানবাহনের চালকদের নিকট হতে ক্ষয়ক্ষতির ভয়ভীতি দেখিয়ে বলপূর্বক চাঁদা আদায় করে আসছে। এ সকল চাঁদাবাজদের অত্যাচারে পণ্যবোঝাই ট্রাক, কাভার্ডভ্যান ও মালবাহী যানবাহনের চালকরা অতিষ্ঠ।

তিনি আরো জানান, গ্রেফতারকৃত আসামীদ্বয়ের বিরুদ্ধে নারায়ণগঞ্জ জেলার বন্দর থানায় আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন।

সদ্য সংবাদ ডেস্কঃ

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের কেন্দ্রীয় সভাপতি ও সাবেক ছাত্রদল সভাপতি শফিউল বারী বাবু মারা গেছেন। সাবেক এই ছাত্রনেতা আজ মঙ্গলবার (২৮ জুলাই) সকালে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু বরন করেন।

প্রচন্ড শ্বাসকষ্ট দেখা দিলে গতকাল সোমবার স্বজনরা তাকে ঢাকার আনোয়ার খান মডার্ন হাসপাতালে ভর্তি করে। পরে শারীরিক অবস্থার অবনতি দেখা দিলে এভারকেয়ার হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।
শফিউল বারী বাবুর মৃত্যুতে বিএনপি ও এর অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীদের মধ্যে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। তার মৃত্যুতে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর গভীর শোক ও মরহুমের পরিবারের প্রতি সমবেদনা প্রকাশ করেছেন।
সকাল দশটায় মরহুমের প্রথম জানাজা নামাজ অনুষ্ঠিত হয়েছে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে। পরিবার সূত্রে জানা যায়, বাদ আছর লক্ষ্মীপুর জেলার রামগতি উপজেলায় দ্বিতীয় জানাজা শেষে তাকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হবে।



সদ্য সংবাদ ডেস্কঃঃ
  নারায়ণগঞ্জ সোনারগাঁও উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা সাইদুল ইসলামের বদলির সঙ্গে সঙ্গেই উপজেলায় অবৈধ কার্যকলাপ শুরু হয়ে গেছে। বিদায়ের একদিনের মাথাতেও সাদিপুুুর ইউনিয়নের নয়াপুর মাঠ অবৈধভাবে পশুর হাট বসানো হচ্ছে। কিন্ত উপজেলা প্রশাসনের এ বিষয়ে কোন ভ্রুক্ষেপ নেই।

জানাগেছে, উপজেলার সাদিপুর ইউনিয়নের এশিয়ান হাইওয়ে (বাইপাস) সড়কের পাশে নয়াপুর সম্মেলন মাঠে ইজারা ছাড়া অবৈধ পশুর হাট বসানোর অভিযোগ উঠেছে। সাদিপুর ইউনিয়নের ক্ষমতাশীল ও বিরোধী দলের নেতারা কোন ইজারা ছাড়াই মাঠে হাট বসানোর জন্য সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন। ইজারা ছাড়া হাট বসানোর ঘটনাকে কেন্দ্র করে ক্ষোভ বিরাজ করেছে এলাকাবাসী ও অন্য হাটের ইজারাদারদের মধ্যে।

ঈদে ঘরমুখো মানুষ যাতে মহাসড়কে যানজটের কবলে পড়ে ঘন্টার পর ঘন্টা বসে থাকতে না হয় সে লক্ষে সারা দেশে মহাসড়কের পাশে কোন পশুর হাট না বসানোর জন্য সরকারের নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। সেজন্য গত কয়েক বছর ধরে মহাসড়কের পাশে কোন হাট বসানোর অনুমতি দেওয়া বন্ধ করে দিয়েছে সরকার।

এদিকে করোনার কারণে দেশের অনেক স্থানে পশুর হাট সীমিত করা হয়েছে। সোনারগাঁয়ে গত কয়েক বছর ধরে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কাঁচপুর ও এশিয়ান হাইওয়ে (বাইপাস) সড়ক ঘেষে নয়াপুর সম্মেলন মাঠে হাট স্থগিত করেছে সোনারগাঁ উপজেলা প্রশাসন।

এ বছর সোনারগাঁয়ে ১৭টি অস্থায়ী ও ২টি স্থায়ী পশুর হাটের ইজারা দেয় উপজেলা প্রশাসন। এর মধ্যে ১৩টি অস্থায়ী হাটের দরপত্র আহবান করা হয়। বাকি ৪টি হাটের কোন দরপত্র আহবান না করায় হাটগুলো স্থগিত রেখেছে উপজেলা প্রশাসন। স্থগিত হাটগুলোর মধ্যে নয়াপুর এলাকা একটি। কিন্তু প্রশাসনের নির্দেশ অমান্য করে জাতীয়পার্টির নেতা এনামুল হক এনাম ও আলী আকবর গত রবিবার থেকে এশিয়ান হাইওয়ের পাশে নয়াপুর সম্মেলন মাঠে হাট বসবে বলে মাইকিং করে মাঠে হাট বাসানোর প্রস্তুতির কাজ শেষ করেছেন।

পশুর হাট বসানোর ব্যাপারে জানতে চাইলে জাতীয়পার্টির নেতা এনামুল হক এনাম হাট বসানোর বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, আমি হাট বসাচ্ছি না। আমি আরেক জনের হয়ে হাটটি দেখাশোনা করছি মাত্র।

এ ব্যাপারে সদ্য যোগদানকারী সোনারগাঁও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আতিকুল ইসলাম জানান, ইজারা ছাড়া কোন অবৈধ পশুর হাট বসতে দেয়া হবে না।

সদ্য সংবাদ ডেস্কঃ  নারায়ণগঞ্জ সোনারগাঁয়ে হাজী মনিরুজ্জামান নামে এক মুক্তিযোদ্ধার বসতবাড়ির জমি জোরপূর্বক দখলের চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। স্থানীয় একটি প্রভাবশালী মহলের নেতৃত্বে এ দখলের পাঁয়তারা চলছে বলে অভিযোগ ওই মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের। এ ঘটনায় পক্ষাঘাতগ্রস্থ মুক্তিযোদ্ধা হাজি মনিরুজ্জামান উপজেলা প্রশাসনের বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগের পর থেকে চরম শঙ্কার মধ্যে দিন কাটছে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার নোয়াগাঁও ইউনিয়নের ধন্দি বাজার এলাকার মুন্সীপুর গ্রামের মোসলেউদ্দিন ফকিরের ছেলে খোকন ফকির (৪৫) সীমানা প্রাচীর ডিঙিয়ে বাড়ির ভিতরে অনুমোদনহীন  তিন তলা ভবন নির্মাণ কাজের ফাউন্ডেশনের পিলার স্থাপন ও বিভিন্ন প্রকার ফলজ ও বনজ গাছ সহ মাটি কেটে নিয়ে দখল করার চেষ্টা করে। এতে বাধা দিলে  ভুক্তভোগী মুক্তিযোদ্ধা মনিরুজ্জামান ও তার স্ত্রী কন্যা সন্তানের উপর  দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হত্যার হুমকি প্রদান ও অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। এঘটনায় ভুক্তভোগীর মুক্তিযোদ্ধা মনিরুজ্জামান গত ২২  জুলাই সোনারগাঁও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে গিয়ে জীবনের নিরাপত্তার ও সম্পতি রক্ষার জন্য আইনি সহযোগিতা চেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

মুক্তিযোদ্ধা  মনিরুজ্জামান কান্নাজড়িত কণ্ঠে সদ্য সংবাদ এর প্রতিবেদককে বলেন, যে দেশের জন্য জীবন বাজি রেখে যুদ্ধ করেছিলাম। আজ সে দেশে নিজ ভিটায় বসবাস করেও আমি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। জালিয়াতি চক্রের কর্মকাণ্ডে আমার পরিবার নিয়ে চরম শঙ্কায় রয়েছি। এই চক্র যেকোন সময় আমার পরিবারের ক্ষতি করতে পারে। তাই আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও  নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনের এমপি লিয়াকত হোসেন খোকা মহোদয়ের সুদৃষ্টি কামনা করছেন।

ভুক্তভোগী মুক্তিযোদ্ধা মনিরুজ্জামান বলেন, অভিযোগের ভিত্তিতে গত শনিবার ঘটনাস্থলে সোনারগাঁও থানা পুলিশের এস আই শাহাদাত পরির্দশন আসেন। পুলিশের উপস্থিতিতে বিবাদী অভিযোগকারী বীর মুক্তিযোদ্ধা মনিরুজ্জামান ও তার পরিবারের উপর চড়াও হয়ে গালাগাল করে। পুলিশ চলে আসার পর এর হত্যার হুমকি ও গালাগালির পরিমাণ আরও বৃদ্ধি পায়। 
আমার কোনো ছেলে সন্তান নেই ,চারজন মেয়ে সন্তান  নিয়ে আমি এখন নিরাপত্তাহীনতায় জীবনযাপন করছি। 

উক্ত বিষয়ে অভিযোগের তদন্ত কর্মকর্তা এস আই শাহদাতের সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, ইউএনও স্যারের বরাবরে একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন মুক্তিযোদ্ধা মনিরুজ্জামান। অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনাস্থল তদন্ত গেলে লিখিত অভিযোগের সত্যতা পেয়েছি। স্থানীয় পঞ্চায়েত কমিটির  সভাপতি ফারুক ফকিরের বরাত দিয়ে এস আই  শাহাদাত বলেন, স্থানীয়ভাবে আপোষ মীমাংসা করে দিবে বলে আশ্বস্ত করেছেন, যদি স্থানীয় পঞ্চায়েত কমিটি উপযুক্ত মীমাংসা না করেন তাহলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সোনারগাঁও থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মনিরুজ্জামান বলেন, এই সক্রান্ত একটি  লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। অভিযোগ পাওয়ার পর তদন্ত করা হয়েছে। কেহ অবৈধ ভাবে জমি দখল করলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সদ্য সংবাদ ডেস্কঃ
  
সোনারগাঁওয়ের টিপুরদী এলাকায় অবস্থিত চৈতি  কম্পোজিট নামের একটি কারখানার বিষাক্ত বর্জ্য পানিতে মিশে খামারিদের বিলের প্রায় কোটি টাকার মাছ মরে ভেসে উঠেছে। 
সোনারগাঁও পৌরসভার বাগনাজিরপুর ও সনমান্দী ইউনিয়নের নাজিরপুর বিলে বিপুল ক্ষয় ক্ষতি হয়েছে।  এই ঘটনায় ভুক্তভোগীরা সোনারগাঁও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।
এলাকাবাসী জানান, পৌরসভার গোয়ালদী গ্রামের করিম মাওলানার ছেলে আল আমিন যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের যুব প্রশিক্ষণ কেন্দ্র থেকে প্রশিক্ষণ শেষে আত্মকর্মসংস্থানের লক্ষে গ্রামের ২০ জন যুবক মিলে ১.৮০ একর জমি ভাড়া নিয়ে একটি মৎস্য প্রকল্প শুরু করেন। তাদের প্রকল্পে বর্তমানে বিভিন্ন প্রজাতির প্রায় ৫০ লাখ টাকার মাছ রয়েছে। এ ছাড়া সনমান্দী ও পৌরসভার রিপন, বদরুজ্জামান, কামালসহ প্রায় ৩০ জন মৎস্য চাষি মারাত্মক ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন।

ভুক্তভোগী আল আমিন জানান, মাছ চাষ করতে বিলের চারিদিকে নেট, খুটি, বাঁশ ও মাছের খাবারসহ এ পর্যন্ত ২৫ লাখ টাকা ব্যয় হয়েছে। মৌসুম শেষে এ প্রকল্পের মাছ প্রায় দেড় কোটি টাকা বিক্রি করতে পারতেন। রোববার  রাত দুটার সময় চৈতী কারখানার বিষাক্ত বর্জ্য নিষ্কাশনের কারণে বিলের সমস্ত মাছ মরতে শুরু করে। বিলে রুই, কাতলা, চিতল, বোয়াল, কই, মাগুর ও সিলভারকার্প জাতীয় মাছসহ প্রায় ৩০ প্রজাতির মাছ মরে ভেসে ওঠায় বিনিয়োগকারীরা এখন পথে বসেছেন।

স্থানীয় এলাকাবাসী জানান, চৈতী কম্পোজিট প্রকাশ্যে প্রতিঘণ্টায় ৭০ হাজার গ্যালন বর্জ্য বিভিন্ন খাল, বিল ও নদ-নদীতে অবৈধভাবে নিষ্কাশন করছে। ইটিপির মাধ্যমে বর্জ্য শোধন ব্যয়বহুল বলে তা ব্যবহার করছে না। প্রশাসন অথবা পরিবেশ অধিদপ্তর কিংবা সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষ কারখানা পর্যবেক্ষণ করতে আসলে অল্প সময়ের জন্য ইটিপি চালু করে। পরে আবার বন্ধ করে দেয়।
চৈতি কম্পোজিটের জিএম মিজানুর রহমান বলেন , আমরা ইটিপি ব্যবহার করে শোধনকৃত পানি আমাদের নিজস্ব জমিতে ফেলছি।

সোনারগাঁও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আতিকুল ইসলাম জানান, আমি যোগদান করার পরই বিষাক্ত বর্জ্যে বিলের মাছ মারা যাওয়ার লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি অত্যন্ত গুরুত্বের সাথে সরেজমিন তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সদ্য সংবাদ ডেস্কঃ  নওগাঁ-৬ (আত্রাই-রাণীনগর) আসনের সংসদ সদস্য ইসরাফিল আলম (৫৪) আর নেই (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। সোমবার (২৭ জুলাই) সকাল সোয়া ৬টার দিকে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন।

তীব্র শ্বাসকষ্ট নিয়ে সংসদ সদস্য ইসরাফিল আলম গত ১৭ জুলাই থেকে স্কয়ার হাসপাতালে ভেন্টিলেশনে ছিলেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, দুই মেয়ে ও এক ছেলেসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। তিনি নওগাঁ জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ছিলেন।

রাণীনগর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আনোয়ার হোসেন হেলাল বলেন, বেশকিছু দিন ধরে শারীরিকভাবে অসুস্থতা বোধ করছিলেন সংসদ সদস্য ইসরাফিল আলম। 

গত ৬ জুলাই তাকে প্রথম ঢাকার স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তখন তার শরীরে করোনাভাইরাস ধরা পড়ে। সেখানে কিছু দিন চিকিৎসা নেয়ার পর কিছুটা সুস্থ হলে তাকে বাসায় আনা হয়। পরে পরীক্ষা করে করোনা নেগেটিভ রিপোর্ট আসে তার। এ অবস্থায় গত ১৭ জুলাই আবারো অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। গত শুক্রবার (২৪ জুলাই) রাত ১১টা দিকে প্রচণ্ড শ্বাসকষ্ট দেখা দিলে তাকে ভেন্টিলেশন সাপোর্ট দেয়া হয়।

তিনি বলেন, বাড়িতে নিয়ে আসার পর ১৭ জুলাই তার কাশির সঙ্গে রক্ত আসে। ওই দিন তাকে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তার অবস্থা খুবই সঙ্কটাপন্ন বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছিলেন। সোমবার সকালে তিনি সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

১৯৬৬ সালে রাণীনগর উপজেলার গোনা ইউনিয়নের ঝিনা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন ইসরাফিল আলম। ২০০৮ সালে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন পেয়ে বিপুল ভোটে বিজয়ী হন তৎকালীন ঢাকা মহানগর শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক ইসরাফিল আলম। সেই সংসদে তিনি শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সভাপতি ছিলেন। বর্তমান সংসদে ওই কমিটির পাশাপাশি বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সদস্য তিনি।

সদ্য সংবাদ ডেস্কঃ
জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দৌহিত্র এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয়ের ৫০তম জন্মদিন সোমবার (২৭ জুলাই)।

অগ্নিঝরা একাত্তরের এই দিনে খ্যাতনামা পরমাণু বিজ্ঞানী মরহুম এমএ ওয়াজেদ মিয়া এবং প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার ঘরে জন্ম নেন সজীব ওয়াজেদ। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর নানা শেখ মুজিবুর রহমান তার নাতির নাম রাখেন জয়।

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু সপরিবারে নিহত হওয়ার সময় মা ও বাবার সঙ্গে বেলজিয়ামের ব্রাসেলসে ছিলেন জয়। ওই দিন ঘাতক চক্রের হাতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সহপরিবারে শহীদ হন। পরবর্তীতে মায়ের সঙ্গে জার্মানি হয়ে ভারতে যান জয়। সেখানে তার শৈশব ও কৈশোর কাটে। সেখানকার নৈনিতালের সেন্ট জোসেফ কলেজে লেখাপড়ার পর যুক্তরাষ্ট্রের ইউনিভার্সিটি অব টেক্সাস অ্যাট আর্লিংটন থেকে কম্পিউটার সায়েন্সে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেন জয়। পরে হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে লোকপ্রশাসনে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। ২০০২ সালের ২৬ অক্টোবর ক্রিস্টিন ওভারমায়ারকে বিয়ে করেন জয়। তাদের একমাত্র মেয়ের নাম সোফিয়া।

লেখাপড়া করা অবস্থায় রাজনীতির প্রতি অনুরক্ত থাকলেও জয় সক্রিয়ভাবে রাজনীতিতে আসেন ২০১০ সালে। ওই বছরের ২৫ ফেব্রুয়ারি পিতৃভূমি রংপুর থেকে আওয়ামী লীগের প্রাথমিক সদস্য পদ দেওয়া হয় তাকে। এর মধ্য দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে রাজনীতিতে আসেন জয়। দীর্ঘ দিন ধরে তিনি মা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিবিষয়ক উপদেষ্টার দায়িত্বে আছেন। শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশের নেপথ্য কারিগর সজীব ওয়াজেদ জয়।

২০০৭ সালে ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরাম থেকে আইটি বিশেষজ্ঞ হিসেবে ‘ইয়াং গ্লোবাল লিডার’ অ্যাওয়ার্ড লাভ করেন তিনি।

২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বরের জাতীয় নির্বাচনে আওয়ামী লীগের ইশতেহারে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার বিষয়টি নিয়ে আসেন তিনি। পর্দার অন্তরালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পাশে থেকে গোটা দেশে তথ্যপ্রযুক্তির বিপ্লব ঘটান এ বিশেষজ্ঞ। বর্তমানে দলীয় ঘরানা ছাড়াও তথ্যপ্রযুক্তি, রাজনীতি, সামাজিক, অর্থনৈতিক, শিক্ষাবিষয়ক বিভিন্ন কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে তথ্যপ্রযুক্তির বিকাশ, তরুণ উদ্যোক্তা তৈরিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে যাচ্ছেন জয়। বিশেষ করে দেশের তরুণদের দেশপ্রেমে উজ্জীবিত করে ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের পথে আত্মনিয়োগ করার ক্ষেত্রে বিভিন্ন কর্মসূচি ও পদক্ষেপ নিচ্ছেন তিনি।

দেশ গঠনে তরুণদের মতামত, পরামর্শ শুনতে জয়ের ‘লেটস টক’ ও ‘পলিসি ক্যাফে’ দু’টি প্রোগ্রাম এরই মধ্যে বেশ সাড়া ফেলেছে। এছাড়া তিনি তরুণ উদ্যোক্তা ও তরুণ নেতৃত্বকে একসঙ্গে যুক্ত করার পাশাপাশি প্রশিক্ষিত করতে তরুণদের বৃহত্তম প্ল্যাটফরম ‘ইয়াং বাংলার’ সূচনা করেন। এরই মধ্যেই ডিজিটাল বাংলাদেশের স্থপতি হিসেবেও তার নাম ছড়িয়ে পড়েছে।

সদ্য সংবাদ ডেস্কঃঃ
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আত্মস্বীকৃত খুনি রাশেদ চৌধুরীকে 'ফেরত পাঠানোর প্রক্রিয়া শুরু' করেছে যুক্তরাষ্ট্র। ১৫ বছর পর যুক্তরাষ্ট্রে খুনি রাশেদ চৌধুরীর নথি তলব করেছে দেশটির আদালত। মার্কিন অ্যাটর্নি জেনারেল বিল বার ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে এই আবেদনের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সব পক্ষকে তাদের প্রতিক্রিয়া জমা দেওয়ার সময়সীমা নির্ধারণ করে দিয়েছেন। ১৫ বছর আগে বাংলাদেশের সেনাবাহিনীর সাবেক কর্মকর্তা রাশেদের রাজনৈতিক আশ্রয়ের আবেদন মঞ্জুর করেছিল যুক্তরাষ্ট্র।

এ ব্যাপারে মার্কিন সাময়িকী পলিটিকো স্থানীয় সময় শুক্রবার জানিয়েছে, রাশেদকে যুক্তরাষ্ট্রে রাজনৈতিক আশ্রয় দানের সিদ্ধান্ত পর্যালোচনা প্রক্রিয়া শুরু করেছে দেশটির আইন বিভাগ। এ প্রক্রিয়ার শুরুর মাধ্যমে শেষ পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে আশ্রয় হারাতে পারেন বঙ্গবন্ধুর এই খুনি। আর এমন ঘটলে, তাকে বাংলাদেশে ফিরিয়ে আনার দীর্ঘ প্রচেষ্টা বাস্তবায়িত হতে পারে বলে পলিটিকো ইঙ্গিত দিয়েছে। দীর্ঘদিন ধরেই বাংলাদেশের তরফ থেকে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে খুনি রাশেদ চৌধুরীকে ফিরিয়ে দেওয়ার দাবি জানানো হচ্ছে।

অন্যদিকে, মার্কিন অ্যাটর্নি জেনারেল বিল বারের এই পর্যালোচনা প্রক্রিয়া নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন রাশেদ চৌধুরীর আইনজীবী মার্ক ভ্যান ডার হাউট।এ ব্যাপারে ওই আইনজীবী পলিটিকোকে বলেন, ২০০৫ সালে রাজনৈতিক আশ্রয় আবেদন মঞ্জুরের সময় বিল বার তার অসন্তুষ্টির কথা না জানিয়ে এখন আবার এই মামলা পুনরায় শুরু করতে চাইছেন। এর কোনো কারণ থাকতে পারে না।


রাজনৈতিক আশ্রয়ে থাকা রাশেদ চৌধুরী বর্তমানে ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যের রাজধানী সেক্রামেন্টো থেকে প্রায় ১১০ কিলোমিটার দূরের শহর কনকর্ডের হ্যাকলবেরি ড্রাইভে বসবাস করছেন বলে জানা যায়। তবে দীর্ঘদিন তাকে জনসম্মুখে দেখা যাচ্ছে না। বারবার স্থান বদল করে ২০১৫ সাল থেকে তিনি কনকর্ডে বসবাস করছেন। এর আগে ক্যালিফোর্নিয়া, কলোরাডো, ইলিনয় এবং মিসৌরিসহ বেশ কয়েকটি জায়গায় বসবাস করেছেন।

জানা গেছে, ক্যালিফোর্নিয়ায় দুটি বাড়ির মালিক রাশেদ চৌধুরী। যার একটি কনকর্ডে এবং অন্যটি সেক্রামেন্টোতে। ২০১৫ সালে কনকর্ডে প্রায় চার লাখ ষাট হাজার ডলার দিয়ে কেনা বাড়িটির বর্তমান মূল্য প্রায় পাঁচ কোটি দশ লাখ টাকা। ওয়ালনাট ক্রিকে ২০১৬ সালে তিনি প্রায় দশ লাখ ৪০ হাজার ডলারে বাড়িটি কিনেন। যার বর্তমান মূল্য প্রায় ১১ কোটি চার লাখ টাকা।রাশেদ চৌধুরীর দুই ছেলে রূপম জে চৌধুরী এবং সুনাম এম চৌধুরী। তার দুই ছেলেও তাদের পরিবার নিয়ে ক্যালিফোর্নিয়ায় থাকেন।

রাশেদ চৌধুরী’র বড় ছেলে রূপম চৌধুরী ক্যালিফোর্নিয়ার ওয়ালনাট ক্রিকে থাকেন। তার স্ত্রী কাজল এন ইসলাম এবং তাদের দুই সন্তানকে নিয়ে সেখানে বসবাস করছেন।

উল্লেখ্য, ১৯৯৬ সালে যুক্তরাষ্ট্রে ঢুকেই রাজনৈতিক আশ্রয়ের আবেদন করেন রাশেদ চৌধুরী। তার প্রায় দশ বছর পর অভিবাসন আদালত তার আশ্রয় আবেদন মঞ্জুর করেন। যদিও, রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করে যুক্তরাষ্ট্রের ডিপার্টমেন্ট অব হোমল্যান্ড সিকিউরিটি (ডিএইচএস)। ডিএইচএস'র পক্ষ থেকে বলা হয় আশ্রয় আবেদনকারী নিজদেশে সেনা অভ্যুত্থানের সঙ্গে জড়িত, তাই সে আশ্রয় পাওয়ার অযোগ্য। পঁচাত্তরে পরিবারে জাতির পিতাকে হত্যার পর ১৯৭৬ সালে রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় রাশেদ চৌধুরী জেদ্দায় বাংলাদেশ কনস্যুলেটে দ্বিতীয় সচিব হিসেবে নিয়োগ পান। পরে তিনি কেনিয়া, মালয়েশিয়া, জাপান ও ব্রাজিলে বাংলাদেশ দূতাবাসে কাজ করেন।আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর ১৯৯৬ সালের জুলাইয়ে বঙ্গবন্ধুর এ খুনিকে চাকরি থেকে অব্যহতি দিয়ে দেশে ফেরার নির্দেশ দেওয়া হয়। কিন্তু তিনি দেশে না ফিরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সানফ্রান্সিসকো চলে যান।

রাশেদ চৌধুরীকে ফিরিয়ে দিতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কাছে বারবার আবেদন জানিয়েছে বাংলাদেশ। সর্বশেষ ২০১৯ সালের ৫ নভেম্বর এই বিচারের কাগজপত্র চায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র।

১৯৯৬ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার ক্ষমতায় যাওয়ার পর ১২ নভেম্বর ইনডেমনিটি আইন বাতিল করে বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার করার পথ সুগম করে। তারপর বিচারের আয়োজন করা হয়। ২০০৯ সালে ইন্টারপোলের মাধ্যমে দণ্ডিত আসামিদের বিরুদ্ধে রেডএলার্ট জারি করে বাংলাদেশের পুলিশ। নানান আইনি প্রক্রিয়া শেষে ২০১০ সালের ২৭ জানুয়ারিতে পাঁচজনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়। যেসব খুনির মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হয়েছে তারা হলেন- সাবেক লেফটেন্যান্ট কর্নেল ফারুক রহমান, মহিউদ্দিন আহমেদ (আর্টিলারি), শাহরিয়ার রশিদ খান এবং একেএম মহিউদ্দিন আহম্মেদ (ল্যান্সার) ও সাবেক মেজর বজলুল হুদা। ঢাকা ও ব্যাংককের মধ্যে বন্দি বিনিময় চুক্তি স্বাক্ষরের পর বজলুল হুদাকে থাইল্যান্ড থেকে দেশে ফিরিয়ে আনা হয়। তবে বন্দি বিনিময় চুক্তি না থাকলেও সেনাসমর্থিত অন্তর্বর্তী সরকারের সময়ে বরখাস্তকৃত লেফটেন্যান্ট কর্নেল একেএম মহিউদ্দিন আহমেদকে যুক্তরাষ্ট্র ফিরিয়ে দেয়। দণ্ডিত আরেক খুনি আবদুল আজিজ পাশা পলাতক অবস্থায় জিম্বাবুয়েতে ২০০১ সালের ২ জুন মারা যান।

সব শেষ বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার অন্যতম আসামি হলেন ক্যাপ্টেন আব্দুল মাজেদ। তিনি দীর্ঘদিন বিদেশে পালিয়ে ছিলেন। গত ৬ এপ্রিল রাত সাড়ে তিনটায় রাজধানীর মিরপুরের পল্লবী থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে ১২ এপ্রিল তার ফাঁসি কার্যকর করে সরকার।

পলাতক অন্য পাঁচ খুনি হলেন- আব্দুর রশিদ, শরিফুল হক ডালিম, এম রাশেদ চৌধুরী, এসএইচএমবি নূর চৌধুরী ও রিসালদার মোসলেম উদ্দিন। এদের মধ্যে কানাডায় নূর চৌধুরী, যুক্তরাষ্ট্রে রাজনৈতিক আশ্রয়ে রাশেদ চৌধুরী। মোসলেম উদ্দিন জার্মানিতে ও শরিফুল হক ডালিম স্পেনে আছে। তবে খন্দকার আবদুর রশিদ কোন দেশে অবস্থান করছেন তার সঠিক তথ্য কারো জানা নেই।

সদ্য সংবাদ ডেস্কঃঃ
 মশিউর রহমান রাঙ্গাকে সরিয়ে জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলুকে জাতীয় পার্টির (জাপা) মহাসচিব হিসেবে নিয়োগ দিয়েছেন দলের চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের।
রবিবার (২৬ জুলাই) জাতীয় পার্টির যুগ্ম দফতর সম্পাদক মাহমুদ আলম স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ (জি এম) কাদের এক সাংগঠনিক আদেশে জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলুকে জাতীয় পার্টির মহাসচিব হিসেবে নিয়োগ দিয়েছেন।

উল্লেখ্য যে, জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু মহাসচিব হিসেবে মশিউর রহমান রাঙ্গার স্থলাভিষিক্ত হলেন। পার্টির গঠনতন্ত্রের ২০/১(১) ক উপধারা এর প্রদত্ত ক্ষমতাবলে এ আদেশ অদ্য ২৬ জুলাই ২০২০ থেকে কার্যকর বলেও বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

সদ্য সংবাদ ডেস্কঃ 
 রাজধানীর চকবাজার এলাকা থেকে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন হিযবুত তাহরীরের আঞ্চলিক প্রধান শাকিল ওরফে সাইফুল ইসলামকে (৩১) গ্রেফতার করেছে র‍্যাব
শনিবার (২৫ জুলাই) র‍্যাব-১০ এর মেজর আনিছুর রহমান আনিছ (সিপিসি-৩) সারাবাংলাকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন। এসময় ১২২ পাতা লিফলেট, ২টি জিহাদি বই, ৩টি মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়।

মেজর আনিছুর রহমান বলেন, গ্রেফতার হওয়া জঙ্গিকে গত বুধবার (২২ জুলাই) মধ্য রাতে ঢাকার চকবাজার এলাকায় লিফলেট বিতরণের সময় গ্রেফতার করা হয়। অনুসন্ধানের স্বার্থে বিষয়টি প্রকাশে দেরি হয়েছে।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের বরাত দিয়ে মেজর আনিছ বলেন, ‘গ্রেফতারকৃত আসামি নিষিদ্ধ ঘোষিত সংগঠন হিযবুত তাহরীরের মিডিয়া সেলের লিফলেট তৈরি ও প্রচার কাজে সক্রিয়ভাবে জড়িত। সে দেশের রাষ্ট্রীয় শাসন ব্যবস্থার পরিপন্থী উগ্র ইসলামী শাসন ব্যবস্থা বাস্তবায়নের জন্য জিহাদী প্রচারপত্র বিলি করে সংগঠনের সদস্য সংগ্রহ করে।

শাকিল নিষিদ্ধ ঘোষিত উগ্র ইসলামী জঙ্গি সংগঠন জেএমবি’রও একজন সদস্য বলেও জানা গেছে। গ্রেফতারকৃত আসামির বিরুদ্ধে চকবাজার মডেল থানায় সন্ত্রাসবিরোধী আইনে মামলা হয়েছে।

সদ্য সংবাদ ডেস্কঃ
সদ্য বদলি হওয়া সোনারগাঁ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাইদুল ইসলাম বিদায় বেলায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে আবেগঘন স্ট্যাটাস দিয়েছেন৷ স্ট্যাটাসে তিনি লেখেন, অধীনতামূলক বশ্যতার অন্যায় নীতি মেনে নিতে পারিনি বলেই আমি স্বেচ্ছায় এখান থেকে চলে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি৷

শনিবার (২৫ জুলাই) রাতে সোনারগাঁ উপজেলা প্রশাসনের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে এ স্ট্যাটাস পোস্ট করা হয়৷

সোনারগাঁবাসীকে উদ্দেশ্য করে স্ট্যাটাসে ইউএনও সাইদুল ইসলাম লেখেন, এই প্রিয় ভূমিতে আজ আমার ৪ মাস ২৪ দিন। আজ আপনাদের থেকে বিদায় নিয়ে চলে যাচ্ছি নতুন কর্মস্থলে। যদিও জানি চলে যাওয়া মানে প্রস্থান নয়।

তিনি বলেন, এখানে আমার অবস্থানকালীন পুরোটা সময় আমি আন্তরিকভাবে চেষ্টা করেছি সকল অন্যায় আর অনিয়ম রুখে দিয়ে আপনাদের অধিকার সমুন্নত রাখতে। চেষ্টা করেছি আপনাদের একজন সেবক হয়ে থাকতে। আমার বিশ্বাস আমি সেটা পেরেছি। বাকিটা আপনাদের বিবেচনা।

তার স্বপ্নের কথা জানিয়ে ইউএনও লেখেন, স্বপ্ন ছিল সোনারগাঁয়ের অন্তত ৩০ হাজার তরুণকে পর্যায়ক্রমে পিডিএফ কপির ১০ টি বেসিক বই পড়াবো। বাঙালি জাতির উদ্ভব থেকে অদ্যাবধি এবং ব্যক্তিত্ব বিকাশে সহায়ক বইগুলি ছিল সে তালিকায়। স্বপ্ন ছিল আগামী দুই বছরে ত্রিশ হাজার শিক্ষিত বেকার তরুণ/তরুণীদের সরকারের আর্নিং বাই লার্নিং প্রোগ্রামের মাধ্যমে ট্রেনিং এর আওতায় এনে আত্মকর্মসংস্থানে সহায়তা করবো। এখানে হলো না সেসবের কিছুই।

পোস্টে আরও লিখেছেন, তবুও অনেক ভালোলাগা নিয়ে চলে যাচ্ছি।সোনারগাঁয়ের মানুষের সবচেয়ে বিপদের দিনে আমি পাশে ছিলাম বন্ধু হয়ে এ ভালোলাগার কোন তুলনা নেই। সুসময়ে নয়, দুঃসময়ে আমি সোনারগাঁয়ের দুঃখী মানুষগুলির সহযাত্রী হতে পেরেছিলাম সত্যিই এ আমার এক অন্যরকম প্রাপ্তি।

ইউএনও সাইদুল লেখেন, আপনারা আমাকে ভুল বুঝবেন না- অধীনতামূলক বশ্যতার অন্যায় নীতি মেনে নিতে পারিনি বলেই আমি স্বেচ্ছায় এখান থেকে চলে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এখান থেকে বদলী হতে আমার যে শ্রদ্ধেয় স্যারগণ সহযোগিতা করেছেন তাদের প্রতি আমি আন্তরিকভাবে কৃতজ্ঞ।

যে ভালোবাসা আর সম্মান আপনারা সোনারগাঁবাসী আমাকে দিয়েছেন, বিশ্বাস করুন এতটার যোগ্য আমি মোটেও নই। আমার বদলির খবর শুনে অসংখ্য মানুষ কষ্টে নির্ঘূম রাত কাটিয়েছেন সেকথা কয়েকদিন থেকেই শুনছি। সহস্র তরুণের বুকের হাহাকার দেখেছি। বাবার বয়সি মানুষের বুকের দীর্ঘশ্বাস দেখেছি। মায়ের বয়সী মহিলাকে চোখের সামনে অঝোরে কাঁদতে দেখেছি। ভাষা নেই, সত্যিই কিছু বলার ভাষা নেই আমার। শুধু এইটুকু বলি আপনাদের চোখের অকৃত্রিম জলগুলি সাথে করে নিয়ে যাচ্ছি। ভালোবেসে নীরবে ঝরানো একফোঁটা চোখের জলের মূল্য কত সে আমি খুব ভালো করেই জানি।

সৃষ্টিকর্তার কাছে শুধু এইটুকু প্রার্থনা সোঁনারগাবাসীর এই ভালোবাসার প্রতিদান দেবার সুযোগ তিনি যেন কোন একদিন আমাকে দেন। যেদিন যোগদান করেছিলাম সেদিন একটি কথা বলেছিলাম৷ আজও কবির ভাষায় সেটি বলেই শেষ করতে চাই, ‘মোর নাম এই বলে খ্যাত হোক! আমি তোমাদের লোক!’

সদ্য সংবাদ ডেস্কঃ
 
আসন্ন ঈদ-উল-আযহা উপলক্ষে কুরবানীর হাটে আইন-শৃঙ্খলা ও নিরাপত্তা বিষয়ে হাট ইজারাদারদের সাথে নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জায়েদুল আলমের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শনিবার (২৫ জুলাই) সকালে জেলা পুলিশ সুপারের সেমিনার কক্ষে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।
সভায় জেলা পুলিশ সুপার জনাব মোহাম্মদ জায়েদুল আলম এর সভাপতিত্বে সদর, ফতুল্লা ও বন্দর থানা এলাকার পশুর হাট ইজারাদারগণ উপস্থিত ছিলেন।
সভাপতির বক্তব্যে জেলা পুলিশ সুপার ইজারাদারদের কঠোর হুশিয়ারি দিয়ে বলেন, হাটের জন্য রাস্তা বা নৌ-পথ দিয়ে যাওয়া কোন পশুবাহী ট্রাক বা নৌকা থেকে জোরপূর্বক পশু নামানো যাবেনা। এ ধরনের কোন অভিযোগ পেলে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না।

এছাড়া সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী যথাযথ স্বাস্থ্য বিধি পালনসহ সামাজিক ও শারিরীক দূরত্ব বজায় রাখার জন্য সংশ্লিষ্টদের পরামর্শ দেন। হাটে মাস্ক ব্যতিত কোন ক্রেতা বা বিক্রেতা যাতে প্রবেশ ও অবস্থান করতে না পারে সে ব্যাপারেও হাট ইজারাদারদের সজাগ দৃষ্টি রাখার আহ্বান জানান।

পুলিশ সুপার আরো বলেন, নিরাপত্তার স্বার্থে অর্থ বহনেও প্রয়োজনে পুলিশের সহায়তা নিতে পারবেন।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন-জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) টি.এম মোশাররফ হোসেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক-সার্কেল) মেহেদী ইমরান সিদ্দিকী, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর) সুভাস চন্দ্র সাহা ও সহকারি পুলিশ সুপার (ট্রাফিক) জনাব মোঃ সালেহ আহমেদ প্রমূখ।


সদ্য সংবাদ ডেস্কঃ 
কোরবানির পশুর হাট কেন্দ্রিক বেশকিছু নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েছে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি)। ডিএমপি জানিয়েছে, উৎসবমুখর ও নিরাপদ পরিবেশে পশুর হাটের কার্যক্রম সম্পন্ন করার লক্ষ্যে সব প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে।
শুক্রবার (২৪ জুলাই) ডিএমপির জনসংযোগ শাখা থেকে জানানো হয়, কোরবানির পশুর হাটগুলোর ব্যবস্থাপনা ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করাসহ ঢাকা মহানগরীর সব বিপণিবিতান, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তির টাকা লেনদেন ও পরিবহনে মানি এস্কর্ট ব্যবস্থা প্রবর্তন, সব লঞ্চ ও বাস টার্মিনালে নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।
ঈদুল আজহা উপলক্ষে পশুর হাট কেন্দ্রিক নিরাপত্তা ব্যবস্থার পাশাপাশি কোরবানির হাটের জন্য স্বাস্থ্য বিধিমালা, কাঁচা চামড়া পাচার রোধ এবং কেনা-বেচার ব্যবস্থা, বাস ও লঞ্চ টার্মিনাল এবং রেলওয়ে স্টেশন কেন্দ্রিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা ও ঈদ পরবর্তী নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েছে ডিএমপি।
পশুর হাট কেন্দ্রিক নিরাপত্তা ব্যবস্থার মধ্যে থাকছে–
১. কোরবানির পশুর হাট কেন্দ্রিক নিরাপত্তা ও ট্রাফিক ব্যবস্থা। 
২. পশুর হাট কেন্দ্রিক সাদা পোশাকে নিরাপত্তা ব্যবস্থা। 
৩. প্রতিটি পশুর হাটে ওয়াচ টাওয়ার স্থাপন। 
৪. প্রতিটি পশুর হাটে অস্থায়ী পুলিশ কন্ট্রোল রুম স্থাপন। 
৫. পশুর হাট কেন্দ্রিক মানি এস্কর্ট ব্যবস্থা। 
৬. কন্ট্রোলরুম ও প্রতিটি থানায় মানি এস্কর্ট টিম স্ট্যান্ডবাই থাকবে।
৭. কোরবানির পশুর হাটে জাল নোট শনাক্তকরণ মেশিন স্থাপন। 
৮. পশুর হাটের চৌহদ্দির বাইরে হাট বসতে না দেওয়া। 
৯. বলপূর্বক পশুবাহী ট্রাক ও নৌকা আটকিয়ে অন্য হাটে নামানো বন্ধ। 
১০. নির্ধারিত হারে হাসিল আদায় নিশ্চিত। 
১১. হাসিলের হার বড় ব্যানার ও ফেস্টুনের মাধ্যমে দৃশ্যমান রাখা। 
১২. জাল টাকার বিস্তার রোধ ও পশুর হাটে অজ্ঞান পার্টি, মলম পার্টি, পকেটমার ও অন্যান্য অপরাধীদের তৎপরতা বন্ধ করতে কার্যকরী ব্যবস্থা। 
১৩. পশুর বিক্রয়লব্ধ টাকা ছিনতাই প্রতিরোধে তৎপরতা।
১৪. অস্থায়ী পুলিশ কন্ট্রোলরুম ও ওয়াচ টাওয়ারে জন সচেতনতামূলক ব্যানার স্থাপন। ১৫. পশুর হাটে ক্রেতা-বিক্রেতাদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী ব্যবহার নিশ্চিত এবং প্রবেশ মুখে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা রাখা ও জীবাণুনাশক চেম্বার স্থাপন। 
১৬. করোনা সংক্রমণ ঝুঁকি এড়াতে অনলাইন ভিত্তিক বিক্রয় প্রতিষ্ঠানগুলোকে সিটি করপোরেশনের মাধ্যমে নিবন্ধিত হয়ে পশু বিক্রির জন্য উৎসাহিত করা। 
১৭. সার্বক্ষণিক মেডিক্যাল টিম ও ভেটেরিনারি অফিসার (পশুর ডাক্তার) নিয়োজিত রাখতে হবে।
১৮. হাট এলাকার পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখা।
১৯. পশুর হাট কেন্দ্রিক নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ এবং ফায়ার টেন্ডার মোতায়েন রাখা। ২০. এরই মধ্যে ইজারাদারদের প্রতি কিছু দায়িত্ব পালনে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। তার মধ্যে রয়েছে- নির্ধারিত তারিখের আগে হাটে পশু না আনা, চৌহদ্দি বাঁশ দিয়ে ঘিরে রাখা, চৌহদ্দির বাইরে হাট না বসানো, পশু বহনকারী ট্রাকের সামনে হাটের নাম ব্যানারে লিখে রাখা। এক হাটের পশু অন্য হাটে না নামানো, নির্ধারিত হারের অতিরিক্ত হাসিল আদায় না করা, হাট এলাকায় সিসিটিভি স্থাপন ও মনিটরিংয়ের ব্যবস্থা।
ক্রেতা ও বিক্রেতাদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা নিশ্চিত করা, জেনারেটরের ব্যবস্থা রাখা এবং পর্যাপ্ত সংখ্যক স্বেচ্ছাসেবক দৃশ্যমান আইডি কার্ডসহ নিয়োগ করা। টাকা পরিবহনে পুলিশের মানি এস্কর্ট সেবা গ্রহণ করা, হাটের মধ্যে স্থায়ী খাবারের দোকান স্থাপন করা এবং কোরবানির পশু ব্যবসায়ীদেরকে মলম পার্টি, অজ্ঞান পার্টি সম্পর্কে সচেতন করতে লিফলেট দেওয়া ও মাইকিংয়ের ব্যবস্থা করা।


সদ্য সংবাদ ডেস্কঃ
সোনারগাঁ উপজেলার শম্ভুপুরা ইউনিয়নে রাফি (৬) নামের এক শিশু পানিতে ডুবে মারা গেছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে।
শিশু রাফি শম্ভুপুরা ইউনিয়নের একরামপুর গ্রামের আল-আমিনের ছেলে।
বন্যায় পানি বেড়ে  যাওয়ায় বাড়ির কাছে পানি চলে আসে,তাই এই দূর্ঘটনা।

স্থানীয় এলাকাবাসী জানায়, বৃহস্পতিবার দুপুরে রাফি খেলতে খেলতে সবার অগোচরে বাড়ীর পাশে একটি ডোবার পানিতে পড়ে যায়। পরে তার দেহ পানিতে ভেসে উঠলে তার স্বজনরা তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে।

সদ্য সংবাদ ডেস্কঃ নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে সেনাবাহিনী প্রধান,বাংলাদেশ সেনাবাহিনী এর নির্দেশনায় এরিয়া সদর দপ্তর সাভার এবং ৯ পদাতিক ডিভিশনের ব্যবস্থাপনায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে স্থানীয় গর্ভবতী মায়েদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা (নাড়ীর গতি,রক্তচাপ,রক্তশূন্যতা,ওজন,ফিটাল মুভমেন্ট, অক্সিজেন সম্পৃক্ততা) এবং ল্যাব পরীক্ষা (রক্তের গ্রুপ, কম্পিলিট ব্লাড কাউন্ট,কোভিট-১৯ আরটি-পিসিআর পরীক্ষা সুগার পরীক্ষা এবং ইউরিন পরীক্ষাসহ তাদের প্রয়োজনীয় সহায়ক ও উপহার সামগ্রী বক্স, ম্যাক্সি,হরলিক্স এবং স্যানিটারী প্যাড) বিনামূল্যে প্রদান করা হয়।

 ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্পেইন আয়োজনের মাধ্যমে- দুঃস্থ ও গর্ভবতী মায়েদের স্বাস্থ্য সেবা প্রদান করেছে সেনাবাহিনী যা এই মানবিক কার্যক্রম সর্বস্তরের মানুষের মধ্যে ইতিবাচক সাড়া ফেলেছে। 


 ইতিমধ্যে তাদের ব্যবস্থাপনায় ১৩ জুন মানিকগঞ্জ-৯০ জন, ১৬ জুন নরসিংদী-৮৪ জন, ১৮ জুন গাজীপুর - ৫৭ জন, ২২ জুন -শরীয়তপুরে-২২০ জন এবং আজ ২৩ জুলাই নারায়ণগঞ্জে ৮০জন গর্ভবতী মায়েদের চিকিৎসা সেবা দেন ।

 এসময় বক্তব্য রাখেন, লেঃকর্ণেল ফখরুল আলম,বিএস পি, এমপি এইচ অধিনায়ক ১১ ফিল্ড এম্বুলেন্স,মেজর ডাঃ রাজিয়া সুলতানা গাইনোলজিষ্ট, ক্যাপ্টেন ডাঃ আমেনা আক্তার, মেডিক্যাল অফিসার, লেঃ মোঃ আনোয়ার হোসেন, লেঃ কর্ণেল মো আবুল মুত্তাকিম, এস পি পি, পিএস জি জি, মেজর আব্দুল্লাহ আল ফরহাদ লেঃ রীজভীউল হক রিয়াদ এবং সোনারগাঁও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ সাইদুল ইসলামসহ বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ।

সদ্য সংবাদ ডেস্কঃ
করোনাভাইরাসের কারণে সৃষ্ট পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার লক্ষে সব জায়গায় মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করেছে সরকার। এক্ষেত্রে ১২টি স্থান উল্লেখ করে কঠোর নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। মঙ্গলবার (২১ জুলাই) এ সংক্রান্ত একটি পরিপত্র জারি করেছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

পরিপত্রে বলা হয়- 
১. সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও বেসরকারি অফিসে কর্মরত কর্মকর্তা-কর্মচারী ও সংশ্লিষ্ট অফিসে আসা সেবাগ্রহীতারা বাধ্যতামূলকভাবে মাস্ক ব্যবহার করবেন। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বিষয়টি নিশ্চিত করবেন।

২. সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালসহ সব স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্রে আসা সেবা গ্রহীতারা আবশ্যিকভাবে মাস্ক ব্যবহার করবেন। সংশ্লিষ্ট হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বিষয়টি নিশ্চিত করবেন।

৩. শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, মসজিদ, মন্দির ও গীর্জাসহ সব ধর্মীয় উপাসনালয়ে মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। স্থানীয় প্রশাসন ও সংশ্লিষ্ট পরিচালনা কমিটি বিষয়টি নিশ্চিত করবেন।

৪. শপিংমল, বিপণিবিতান ও দোকানের ক্রেতা-বিক্রেতারা আবশ্যিকভাবে মাস্ক ব্যবহার করবেন। স্থানীয় কর্তৃপক্ষ ও মার্কেট ব্যবস্থাপনা কমিটি বিষয়টি নিশ্চিত করবেন।

৫. হাটবাজারে ক্রেতা-বিক্রেতারা মাস্ক ব্যবহার করবেন। মাস্ক পরিধান ব্যতীত ক্রেতা-বিক্রেতারা কোনো পণ্য ক্রয়-বিক্রয় করবেন না। স্থানীয় প্রশাসন ও হাটবাজার কমিটি বিষয়টি নিশ্চিত করবেন।

৬. গণপরিবহনের (সড়ক, নৌ, রেল ও আকাশপথ) চালক, চালকের সহকারী ও যাত্রীদের মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। গণপরিবহনে আরোহণের পূর্বে যাত্রীদের মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও মালিকরা বিষয়টি নিশ্চিত করবেন।

৭. গার্মেন্টস ফ্যাক্টরিসহ সব শিল্প-কারখানায় কর্মরত শ্রমিকদের মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ও মালিকরা বিষয়টি নিশ্চিত করবেন।

৮. হকার, রিকশা ও ভ্যানচালকসহ সব পথচারীর মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। বিষয়টি আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী নিশ্চিত করবেন।

৯. হোটেল ও রেস্টুরেন্টে কর্মরত ব্যক্তি এবং জনসমাবেশ চলাকালীন আবশ্যিকভাবে মাস্ক পরিধান করবেন। বিষয়টি স্থানীয় প্রশাসন ও সংশ্লিষ্ট মালিক সমিতি নিশ্চিত করতে হবে।

১০. সব ধরনের সামাজিক অনুষ্ঠানে আসা ব্যক্তিদের মাস্ক পরিধান নিশ্চিত করতে হবে। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান প্রধান নিশ্চিত করবেন।

১১. বাড়িতে করোনা উপসর্গসহ কোনো রোগী থাকলে পরিবারের সুস্থ সদস্যরা মাস্ক ব্যবহার করবেন।

১২. এ পরিপত্র বাংলাদেশে বসবাসরত সবার জন্য প্রযোজ্য।

সদ্য সংবাদ ডেস্কঃ 
নারায়ণগঞ্জ জেলার সোনারগাঁ উপজেলার শম্ভুপুরা ইউনিয়নের নবীনগর গ্রামের মরহুম হেলাল উদ্দিনের ছেলে ও সোনারগাঁও জার্নালিষ্ট ক্লাবের সভাপতি শেখ এনামুল হক বিদ্যুৎ'র মামা ইঞ্জিনিয়ার আলহাজ্ব মোঃ আলী আহম্মেদ (৭৩) করোনা আক্রান্ত হয়ে ইন্তেকাল করেছেন ( ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন )।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, তিনি দীর্ঘদিন ধরে ডায়াবেটিস সহ বিভিন্ন রকমের বার্ধক্যজনিত রোগে ভুগছিলেন। পরে চিকিৎসার জন্য তাকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিক্যাল  কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয় । সেখানে ভর্তির পর কিছুদিন যাবৎ জ্বর ঠান্ডা গলা ব্যথা জনিত সমস্যা দেখা দিলে করোনা পরীক্ষা শেষে করোনা পজিটিভ ধরা পড়ে।

ইঞ্জিনিয়ার আলহাজ্ব মোঃ আলী আহম্মেদ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ১৪ দিন ভর্তি থাকার পর আজ মঙ্গলবার দুপুর আড়াইটার সময় তিনি চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।
পরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যু বরন করলে  ইঞ্জিনিয়ার আলহাজ্ব মোঃ আলী আহম্মেদের লাশের গোসল শেষে কাফনের কাপড় জড়িয়ে কফিন বন্দি করে অ্যাম্বুলেন্সে করে গ্রামের বাড়িতে উপজেলার শম্ভুপুরা ইউনিয়নের নবীনগরে নিয়ে আসে তার স্বজনরা।
পরে বাদ মাগরিব স্থানীয় মসজিদে জানাজা শেষে সোনারগাঁও জার্নালিস্ট ক্লাবের সদস্য ও তার স্বজনরা নবী নগর কবরস্থানে মৃত আলী আহম্মেদের লাশ দাফন করেন।

সার্বিক সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেন সদ্য বদলীর নির্দেশ পাওয়া, সোনারগাঁও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাইদুল ইসলাম।     

দাফন কাজ সম্পন্ন করেন, সোনারগাঁও জার্নালিষ্ট ক্লাবের সভাপতি শেখ এনামুল হক বিদ্যুৎ, সিনিয়র সহ-সভাপতি ফারুকুল ইসলাম সাধারণ সম্পাদক শওকত ওসমান সরকার রিপন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল হাসান, সদস্য মোঃ মাজহারুল রাসেল ও মৃত ব্যক্তির স্বজনরা।

যোগাযোগের ফর্ম

Name

Email *

Message *

Theme images by merrymoonmary. Powered by Blogger.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget