রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান শাহেদ আটক।

সদ্য সংবাদ ডেস্ক: করোনা পরীক্ষা না করেই জাল সার্টিফিকেট দেয়াসহ নানা অভিযোগে রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান শাহেদকে অস্ত্রসহ গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। র‍্যাবের মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক আশিক বিল্লাহ এ তথ্য জানান।

বুধবার (১৫ জুলাই) ভোর ৫ টা থেকে সাড়ে ৫ টার মধ্যে সাতক্ষীরা সীমান্তের দেবহাটা দিয়ে ভারত পালিয়ে যাওয়ার সময়  তাকে আটক করা হয়। সেখান থেকে তাকে হেলিকপ্টারে করে ঢাকায় আনা হবে বলে জানা গেছে। ঢাকায় আনার পর সংবাদ সম্মেলন করা হবে।

এর আগে শাহেদের প্রতারণা কাজের অন্যতম সহযোগী রিজেন্ট গ্রুপের এমডি মাসুদ পারভেজকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে গাজীপুরের কাপাসিয়া এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

প্রসঙ্গত, ৭ জুলাই অভিযান চালিয়ে রিজেন্ট হাসপাতালের উত্তরা ও মিরপুরের শাখা দুটি সিলগালা করে দেয় র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত।

অভিযানের পর র‍্যাবের ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলম সাংবাদিকদের বলেন, রিজেন্ট হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে তিন ধরনের অভিযোগ ও অপরাধের প্রমাণ তারা পেয়েছেন।

এরপর প্রতারণার অভিযোগে রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান মো. শাহেদকে প্রধান আসামি করে ১৭ জনের নামে উত্তরা পশ্চিম থানায় মামলা করে র‍্যাব। এরই মধ্যে হাসপাতালটির ব্যবস্থাপকসহ ৮ জনকে আটক করা হয়। তবে অভিযানের পর থেকেই পলাতক ছিলেন শাহেদ।

রিজেন্ট হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে অভিযোগ, হাসপাতালটি করোনার নমুনা পরীক্ষা না করে ভুয়া রিপোর্ট তৈরি করত। হাসপাতালটির সঙ্গে সরকারের চুক্তি ছিল ভর্তি রোগীদের বিনামূল্যে চিকিৎসা করাবে। কিন্তু এ চুক্তি ভঙ্গ করে রোগীপ্রতি লক্ষাধিক টাকা বিল আদায় করে তারা। রোগীদের বিনামূল্যে চিকিৎসা দেয়ার কথা বলে সরকারের কাছে ১ কোটি ৯৬ লাখ টাকার বেশি বিল জমা দেয়।

এছাড়া সরকারের সঙ্গে বিনামূল্যে করোনা পরীক্ষার চুক্তি থাকলেও তারা তারা আইইডিসিআর, আইটিএইচ ও নিপসম থেকে ৪ হাজার ২০০ রোগীর বিনামূল্যে নমুনা পরীক্ষা করিয়ে এনেছে। পাশাপাশি নমুনা পরীক্ষা না করেই আরো তিন গুণ লোকের ভুয়া করোনা রিপোর্ট তৈরি করে।

Marcadores:

Post a Comment

[blogger]

যোগাযোগের ফর্ম

Name

Email *

Message *

Theme images by merrymoonmary. Powered by Blogger.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget