Header Ads


পৌর নির্বাচনে সমর্থন আদায়ে ব্যর্থ হয়ে উন্নয়ন নামফলক ভেঙ্গে দিয়েছেন খোকা,বললেন আনোয়ার।

 



সদ্য সংবাদ ডেস্কঃ

নারায়ণগঞ্জ-৩ (সোনারগাঁও) আসনের সাংসদ লিয়াকত হোসেন খোকার নির্দেশে সোনারগাঁ জি আর ইনস্টিটিউশন স্কুল অ্যান্ড কলেজের মূল ফটকে নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেনের নামফলক ভেঙে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। 

বিশেষ সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার ১৭ নভেম্বর দুপুর ২টায় নারায়ণগঞ্জ -৩ আসনের সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা সোনারগাঁ জি আর ইনস্টিটিউশন স্কুল এন্ড কলেজে প্রবেশের পরে স্কুলের মূল ফটকের পাশে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেনের নাম দেখে বেশ রাগান্বিত হন। এসময় উপস্থিত শিক্ষকদের উপর তিনি চটে যান। আর আনোয়ার হোসেনের নাম কেন লেখা হয়েছে সেটা জানতে চান। আশেপাশের অনেক লোকজন সেখানে জড়ো হন। পরে তিনি চলে গেলে সাবিক নামে তার এক অনুগামী সেই ফলক ভেঙে ফেলে।

সোনারগাঁ জি আর ইনস্টিটিউশন স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ সুলতান বলেন, এমপি সাহেব স্কুলে এসে করোনাকালীন সময়ে যাতে শিক্ষার্থীদের কাছে কম টাকা রাখা হয় এটা গভর্নিংবডির কাছে জানানোর কথা বলেন। পরে স্কুলের গেটের পাশে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেনের নামের ফলক দেখে তিনি বেশ রাগান্বিত হয়ে উঠেন।এসময় তিনি আমাকে অনেক ধমকা ধমকি করেন। এক পর্যায়ে তিনি ধমক দিয়ে বলেন, নাম ফলক (জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন) এখন ভাঙেন। রাজস্বখাতের টাকায় নাকি স্কুলের গেইট নির্মিত হয়েছে। তাই তিনি ভেঙে ফেলার নির্দেশ দিয়েছে। পরে তিনি চলে গেলে তার লোকজন এসে এই ফলক ভেঙে দেয়। স্কুলের গভর্নিংবডির সভাপতি ও নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের সদস্য ফারুক ভূঁইয়ার সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, জেলা পরিষদ থেকে জিআর ইন্সটিটিউটের স্কুলের গেইট ও দেয়াল নির্মাণের জন্য ২০ লাখ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। ফলকে উদ্বোধক হিসেবে জেলা পরিষদের নাম থাকবেই। মনে হচ্ছে আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে একজন প্রার্থীকে সমর্থন দেইনি বলে তারা ক্ষুব্ধ হয়ে নামফলকটি ভেঙে দিয়েছে। এ বিষয়ে আমার জেলা পরিষদের সদস্যরা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের সাথে কথা বলবো।

নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেনের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, এডিভি উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় জেলা পরিষদ থেকে ২০ লাখ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে জিআর ইন্সটিটিউটের স্কুলের গেইট ও দেয়াল নির্মাণের জন্য। উদ্বোধনে জেলা পরিষদের নাম ফলক থাকবে এটাই স্বাভাবিক। আড়াইহাজার, বন্দর, রূপগঞ্জ সহ জেলার সকল উপজেলায় সেটিই হচ্ছে।

তিনি বলেন, জাতীয় পার্টির এমপি লিয়াকত হোসেন খোকার নির্দেশক্রমে জোর পূর্বক এই নাম ফলক ভাঙা হয়েছে। কারো জোর চিরস্থায়ী থাকে না আগামীতে সময় আসছে লিয়াকত হোসেন খোকার এই জোর শেষ হওয়ার।

শামীম ওসমান থেকে শুরু করে নারায়ণগঞ্জ জেলার সকল এমপি আমাকে সম্মান দিয়ে কথা বলে, আমাকে সম্মান করে। খোকা এই নাম ফলক ভেঙে আওয়ামী লীগকে ছোট করেছে। আসন্ন সোনারগাঁও পৌরসভা নির্বাচনে লিয়াকত হোসেন খোকার স্ত্রী ডালিয়াকে মেয়র পদে নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের সদস্য ও জিআর ইন্সটিটিউট স্কুলের সভাপতি ফারুক আহম্মেদের সমর্থন না পেয়ে, সমর্থন আদায়ে ব্যর্থতায় ঈর্ষান্বিত হয়ে জেলা পরিষদের নাম ফলক টি ভেঙে দেয়ার মত ন্যক্কারজনক ঘটনাটি ঘটিয়েছে, যা খুবই নিন্দনীয়। আনোয়ার হোসেন বলেন, আমি বিষয়টি জেলা পুলিশ সুপার, জেলা প্রশাসক সহ ঊর্ধ্বতন ব্যক্তিদের জানিয়েছি। তারা এর তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন।


এসএস/বি

Post a Comment

0 Comments