Header Ads


নারায়ণগঞ্জে সাংসদ লিয়াকত হোসেন খোকার কুশপুত্তলিকা দাহ।

 



নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রতিনিধিঃ


নারায়ণগঞ্জ-৩ (সোনারগাঁও) আসনের জাতীয় পার্টির লাঙ্গল প্রতিকের সাংসদ লিয়াকত হোসেন খোকার কুশপুত্তলিকা দাহ করা হয়েছে। সোনারগাঁ জি আর ইনস্টিটিউশন স্কুল অ্যান্ড কলেজের মূল ফটকে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেনের নামফলক ভেঙে দেওয়ার অভিযোগে মহানগর আওয়ামী লীগের মানববন্ধন ও বিক্ষোভ চলাকালে ওই কুশপুত্তলিকা দাহ করা হয়। 

২১ নভেম্বর শনিবার বিকেলে শহরের চাষাঢ়ায় নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সামনে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।
জানা গেছে, ১৭ নভেম্বর মঙ্গলবার অভিভাবকদের সঙ্গে শিক্ষক ও গভর্নিং বডির সদস্যদের নিয়ে বিদ্যালয়ের ভিতরে বৈঠক করেন এমপি লিয়াকত হোসেন খোকা।
ঐদিন বিদ্যালয়ে প্রবেশের প্রধান ফটকের সামনে গেটে লাগানো জেলা পরিষদের অর্থায়নে উন্নয়ন কর্মসূচীর ভিত্তিপ্রস্তর, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেনের নামে নামফলক স্থাপন দেখে বেশ রাগান্বিত হন। এসময় উপস্থিত শিক্ষকদের উপরও চটে যান। আর আনোয়ার হোসেনের নাম কেন লেখা হয়েছে সেটা জানতে চান। এবং উত্তেজিত হয়ে ভেঙ্গে ফেলার নির্দেশ দেন। হইচৈই শুনে আশেপাশের অনেক লোকজন সেখানে জড়ো হয়।
এ ঘটনায় বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ সুলতান মিয়া মিডিয়াকে জানান এমপি খোকা নির্দেশ দিয়ে চলে যাওয়ার জন্য গারিতে উঠতে না উঠতেই তার অনুগামী লোকজন হাতুরি,শাবল নিয়ে নামফলক ভেঙ্গে ফেলে। 

আর এই ঘটনার পর থেকেই নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকার এহেন কান্ডে অপমানিত বোধ করেন এবং তার বিরুদ্ধে ফুঁসে উঠতে শুরু করেন। তারা লিয়াকত হোসেন খোকাকে কোনোভাবেই ছাড় দিবেন না বলে ঘোষণা দেন।
নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগ নেতা কর্মীরা বলেন তার হঠকারিতা আমাদের আশ্চর্য করেছে।
তার এই কর্মকান্ডের জন্য প্রকাশ্যে আওয়ামী লীগের বর্ষিয়ান নেতা আনোয়ার হোসেন'র কাছে ক্ষমা চাইতে হবে। তাকে আর ছাড় দেয়া হবে না।
তাদের ধারাবাহিক কর্মসূচির প্রতিবাদ সভায় আজ লিয়াকত হোসেন খোকার কুশপুত্তলিকা দাহ করা হয়।

এসএস/বি


Post a Comment

0 Comments