করোনা মোকাবিলায় অবদানের জন্য সোনারগাঁও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাইদুল ইসলাম কে সম্মাননা স্মারক প্রদানঃ

 
সদ্য সংবাদঃ সোমবার (২২ জুন)সকাল ১১ ঘটিকার সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে এ সম্মাননা প্রদান করা হয়।

উল্লেখ্য যে সোনারগাঁও   উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ শাহিদুল ইসলাম করোনা মোকাবিলায়  সমাজের সকল ভ্রান্ত ধারনাকে পাল্টে দিয়েছেন। করোনাভাইরাসের কারনে কর্মহীন হয়ে পড়েছে উপজেলার বিভিন্ন পেশার মানুষ। এই পরিবারগুলোর কথা চিন্তা করে সরকারের খাদ্য সহায়তাগুলো জেলা প্রশাসকের নির্দেশনা অনুযায়ী কর্মহীন ও অসহায়দের ঘরে ঘরে পৌঁছে দিচ্ছেন তিনি। একজন উপজেলার অভিভাবকের মতোই অসহায় গরিব ও মধ্যবিত্ত পরিবারগুলোর পাশে দাড়িয়েছেন এই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা। ১' মার্চ  সোনারগাঁও   উপজেলায় যোগদান করেন তিনি। 

 যোগদানের পর থেকেই সাধারণ মানুষের নয়নের মণি হয়ে উঠেছেন। অসহায় মধ্যবিত্ত পরিবারগুলোর মধ্যেই   নজর রেখেছেন শুধু তাই নয়, করোনার মহামারি পরিস্থিতিতে কর্মরত ডাক্তার, নার্স বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাদের সহযোগিতা নিয়ে চালিয়ে যাচ্ছেন উপজেলার উন্নয়ন মূলক কার্যক্রম। চিকিৎসা কাজে নিয়োজিত ডাক্তারদের করোনা সংক্রমণেের হাত থেকে রক্ষার জন্য সরকারি পিপিই সরবরাহ করেন,যেন জনসাধারণকে ভাল চিকিৎসা সেবা দিতে পারেন।সদ্য যোগদান করা তারুণ্যদীপ্ত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা  সাইদুল ইসলাম সফলভাবেই তার দায়িত্ব পালন করে  যাচ্ছেন। করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে, লক ডাউন বাস্তবায়ন, করোনা আক্রান্তদের হোম কোয়ারেন্টিন ও তাদের খাদ্য ব্যবস্থা নিশ্চিত করা, ভোক্তা অধিকার নিশ্চিত ও সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে ভ্রাম্যমান অাদালত পরিচালনায় তার কর্মের মধ্যে দক্ষতার ছাপ রেখেছেন। সবাইকে করোনামুক্ত রাখতে এবং সরকারি প্রনোদনা ও প্রধানমন্ত্রীর খাদ্য উপহার পৌছে দিতে অভিরাম ছুটছেন সোনারগাঁয়ের এ প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে,ছুটে চলছেন গ্রাম থেকে গ্রামান্তরে। ‘জনসেবার জন্য প্রশাসন’ এ শ্লোগানকে সামনে রেখে ‘উন্নত বাংলাদেশ’ গড়তে অবিরাম গতিতে তার উদ্যম উৎসাহে এগিয়ে চলছে সোনারগাঁ উপজেলা প্রশাসন।


দায়িত্ব নেয়ার পরপরই তিনি সরকারি সেবাগুলোকে সর্বাত্মক স্বচ্ছতার সাথে সাধারণ জনগণের দৌরগোড়ায় পৌঁছে দিতে বিভিন্ন উদ্যোগ নেন।
বাল্য বিবাহ, নারী নির্যাতন, ইভটিজিং বন্ধসহ ভুমি খেকোদের কবল থেকে নদী-কৃষি জমির মাটি রক্ষায় নিয়মিত মোবাইল কোট পরিচালনা করেন। বাজার মনিটরিং এর মাধ্যমে দ্রব্যমূল্য উর্ধ্বগতি রোধ, খাদ্যের গুণগত মান উন্নয়নসহ নিরাপদ খাদ্য উৎপাদন ও সরবরাহকরণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছেন।

জাতিসংঘ ঘোষিত এমডিজি অর্জনের লক্ষ্যে সরকার কর্তৃক প্রদত্ত মুক্তিযোদ্ধা ভাতা, বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা, প্রতিবন্ধী ভাতা, মাতৃত্বকালীন ভাতা, ভিজিডি ও হত দরিদ্রদের জন্য বরাদ্দকৃত দশ টাকা কেজি চাল উপযুক্ত ব্যক্তির কাছে পৌছে দিতে তিনি তীক্ষ্ণ  নজরদারি করেছেন। কৃষি উৎপাদনে লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে প্রান্তিক কৃষকদের মাঝে সরকারিভাবে সার ও বীজ পৌছানোর ব্যবস্থা করেছেন কৃষিবান্ধব ইউএনও। ইউএনও সাইদুল ইসলাম বলেন, জেলা প্রশাসক মহোদয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী প্রধানমন্ত্রীর দেয়া খাদ্য সামগ্রী বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষের মাঝে বন্টন করাই আমার কাজ। এভাবেই প্রতিদিন নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে দেশ ও জাতির জন্য কাজ করে যাচ্ছেন সোনারগাঁও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাইদুল ইসলাম। 

তার এই কর্মের স্বীকৃতিস্বরূপ মোবারক হোসেন স্মৃতি সংসদ এর পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা ও সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন সোনারগাঁ উপজেলা চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা মোশারফ হোসেন, মোগরাপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান আরিফ হোসেন বাবু, সাবেক সংসদ মরহুম মোবারক হোসেন'র পুত্র এরফান হোসেন দ্বীপ, রফিকুল হায়দার বাবু ও আওয়ামী লীগের বিভিন্ন অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীগন। 


No comments

Powered by Blogger.