সোনারগাঁও ইউএনও সাইদুল ইসলামের বিদায়ের পরই শুরু সাদিপুরে অবৈধ পশুর হাট!



সদ্য সংবাদ ডেস্কঃঃ
  নারায়ণগঞ্জ সোনারগাঁও উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা সাইদুল ইসলামের বদলির সঙ্গে সঙ্গেই উপজেলায় অবৈধ কার্যকলাপ শুরু হয়ে গেছে। বিদায়ের একদিনের মাথাতেও সাদিপুুুর ইউনিয়নের নয়াপুর মাঠ অবৈধভাবে পশুর হাট বসানো হচ্ছে। কিন্ত উপজেলা প্রশাসনের এ বিষয়ে কোন ভ্রুক্ষেপ নেই।

জানাগেছে, উপজেলার সাদিপুর ইউনিয়নের এশিয়ান হাইওয়ে (বাইপাস) সড়কের পাশে নয়াপুর সম্মেলন মাঠে ইজারা ছাড়া অবৈধ পশুর হাট বসানোর অভিযোগ উঠেছে। সাদিপুর ইউনিয়নের ক্ষমতাশীল ও বিরোধী দলের নেতারা কোন ইজারা ছাড়াই মাঠে হাট বসানোর জন্য সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন। ইজারা ছাড়া হাট বসানোর ঘটনাকে কেন্দ্র করে ক্ষোভ বিরাজ করেছে এলাকাবাসী ও অন্য হাটের ইজারাদারদের মধ্যে।

ঈদে ঘরমুখো মানুষ যাতে মহাসড়কে যানজটের কবলে পড়ে ঘন্টার পর ঘন্টা বসে থাকতে না হয় সে লক্ষে সারা দেশে মহাসড়কের পাশে কোন পশুর হাট না বসানোর জন্য সরকারের নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। সেজন্য গত কয়েক বছর ধরে মহাসড়কের পাশে কোন হাট বসানোর অনুমতি দেওয়া বন্ধ করে দিয়েছে সরকার।

এদিকে করোনার কারণে দেশের অনেক স্থানে পশুর হাট সীমিত করা হয়েছে। সোনারগাঁয়ে গত কয়েক বছর ধরে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কাঁচপুর ও এশিয়ান হাইওয়ে (বাইপাস) সড়ক ঘেষে নয়াপুর সম্মেলন মাঠে হাট স্থগিত করেছে সোনারগাঁ উপজেলা প্রশাসন।

এ বছর সোনারগাঁয়ে ১৭টি অস্থায়ী ও ২টি স্থায়ী পশুর হাটের ইজারা দেয় উপজেলা প্রশাসন। এর মধ্যে ১৩টি অস্থায়ী হাটের দরপত্র আহবান করা হয়। বাকি ৪টি হাটের কোন দরপত্র আহবান না করায় হাটগুলো স্থগিত রেখেছে উপজেলা প্রশাসন। স্থগিত হাটগুলোর মধ্যে নয়াপুর এলাকা একটি। কিন্তু প্রশাসনের নির্দেশ অমান্য করে জাতীয়পার্টির নেতা এনামুল হক এনাম ও আলী আকবর গত রবিবার থেকে এশিয়ান হাইওয়ের পাশে নয়াপুর সম্মেলন মাঠে হাট বসবে বলে মাইকিং করে মাঠে হাট বাসানোর প্রস্তুতির কাজ শেষ করেছেন।

পশুর হাট বসানোর ব্যাপারে জানতে চাইলে জাতীয়পার্টির নেতা এনামুল হক এনাম হাট বসানোর বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, আমি হাট বসাচ্ছি না। আমি আরেক জনের হয়ে হাটটি দেখাশোনা করছি মাত্র।

এ ব্যাপারে সদ্য যোগদানকারী সোনারগাঁও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আতিকুল ইসলাম জানান, ইজারা ছাড়া কোন অবৈধ পশুর হাট বসতে দেয়া হবে না।

No comments

Powered by Blogger.