সোনারগাঁওয়ে মুক্তিযোদ্ধার বসতবাড়ি জোরপূর্বক দখলের চেষ্টার অভিযোগ।

সদ্য সংবাদ ডেস্কঃ  নারায়ণগঞ্জ সোনারগাঁয়ে হাজী মনিরুজ্জামান নামে এক মুক্তিযোদ্ধার বসতবাড়ির জমি জোরপূর্বক দখলের চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। স্থানীয় একটি প্রভাবশালী মহলের নেতৃত্বে এ দখলের পাঁয়তারা চলছে বলে অভিযোগ ওই মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের। এ ঘটনায় পক্ষাঘাতগ্রস্থ মুক্তিযোদ্ধা হাজি মনিরুজ্জামান উপজেলা প্রশাসনের বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগের পর থেকে চরম শঙ্কার মধ্যে দিন কাটছে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার নোয়াগাঁও ইউনিয়নের ধন্দি বাজার এলাকার মুন্সীপুর গ্রামের মোসলেউদ্দিন ফকিরের ছেলে খোকন ফকির (৪৫) সীমানা প্রাচীর ডিঙিয়ে বাড়ির ভিতরে অনুমোদনহীন  তিন তলা ভবন নির্মাণ কাজের ফাউন্ডেশনের পিলার স্থাপন ও বিভিন্ন প্রকার ফলজ ও বনজ গাছ সহ মাটি কেটে নিয়ে দখল করার চেষ্টা করে। এতে বাধা দিলে  ভুক্তভোগী মুক্তিযোদ্ধা মনিরুজ্জামান ও তার স্ত্রী কন্যা সন্তানের উপর  দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হত্যার হুমকি প্রদান ও অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। এঘটনায় ভুক্তভোগীর মুক্তিযোদ্ধা মনিরুজ্জামান গত ২২  জুলাই সোনারগাঁও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে গিয়ে জীবনের নিরাপত্তার ও সম্পতি রক্ষার জন্য আইনি সহযোগিতা চেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

মুক্তিযোদ্ধা  মনিরুজ্জামান কান্নাজড়িত কণ্ঠে সদ্য সংবাদ এর প্রতিবেদককে বলেন, যে দেশের জন্য জীবন বাজি রেখে যুদ্ধ করেছিলাম। আজ সে দেশে নিজ ভিটায় বসবাস করেও আমি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। জালিয়াতি চক্রের কর্মকাণ্ডে আমার পরিবার নিয়ে চরম শঙ্কায় রয়েছি। এই চক্র যেকোন সময় আমার পরিবারের ক্ষতি করতে পারে। তাই আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও  নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনের এমপি লিয়াকত হোসেন খোকা মহোদয়ের সুদৃষ্টি কামনা করছেন।

ভুক্তভোগী মুক্তিযোদ্ধা মনিরুজ্জামান বলেন, অভিযোগের ভিত্তিতে গত শনিবার ঘটনাস্থলে সোনারগাঁও থানা পুলিশের এস আই শাহাদাত পরির্দশন আসেন। পুলিশের উপস্থিতিতে বিবাদী অভিযোগকারী বীর মুক্তিযোদ্ধা মনিরুজ্জামান ও তার পরিবারের উপর চড়াও হয়ে গালাগাল করে। পুলিশ চলে আসার পর এর হত্যার হুমকি ও গালাগালির পরিমাণ আরও বৃদ্ধি পায়। 
আমার কোনো ছেলে সন্তান নেই ,চারজন মেয়ে সন্তান  নিয়ে আমি এখন নিরাপত্তাহীনতায় জীবনযাপন করছি। 

উক্ত বিষয়ে অভিযোগের তদন্ত কর্মকর্তা এস আই শাহদাতের সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, ইউএনও স্যারের বরাবরে একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন মুক্তিযোদ্ধা মনিরুজ্জামান। অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনাস্থল তদন্ত গেলে লিখিত অভিযোগের সত্যতা পেয়েছি। স্থানীয় পঞ্চায়েত কমিটির  সভাপতি ফারুক ফকিরের বরাত দিয়ে এস আই  শাহাদাত বলেন, স্থানীয়ভাবে আপোষ মীমাংসা করে দিবে বলে আশ্বস্ত করেছেন, যদি স্থানীয় পঞ্চায়েত কমিটি উপযুক্ত মীমাংসা না করেন তাহলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সোনারগাঁও থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মনিরুজ্জামান বলেন, এই সক্রান্ত একটি  লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। অভিযোগ পাওয়ার পর তদন্ত করা হয়েছে। কেহ অবৈধ ভাবে জমি দখল করলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

No comments

Powered by Blogger.