অধীনতামূলক বশ্যতার অন্যায় নীতি মেনে নিতে পারিনি বলেই আমি স্বেচ্ছায় এখান থেকে চলে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি,সদ্য বদলী হওয়া ইউএনও সাইদুল ইসলাম।

সদ্য সংবাদ ডেস্কঃ
সদ্য বদলি হওয়া সোনারগাঁ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাইদুল ইসলাম বিদায় বেলায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে আবেগঘন স্ট্যাটাস দিয়েছেন৷ স্ট্যাটাসে তিনি লেখেন, অধীনতামূলক বশ্যতার অন্যায় নীতি মেনে নিতে পারিনি বলেই আমি স্বেচ্ছায় এখান থেকে চলে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি৷

শনিবার (২৫ জুলাই) রাতে সোনারগাঁ উপজেলা প্রশাসনের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে এ স্ট্যাটাস পোস্ট করা হয়৷

সোনারগাঁবাসীকে উদ্দেশ্য করে স্ট্যাটাসে ইউএনও সাইদুল ইসলাম লেখেন, এই প্রিয় ভূমিতে আজ আমার ৪ মাস ২৪ দিন। আজ আপনাদের থেকে বিদায় নিয়ে চলে যাচ্ছি নতুন কর্মস্থলে। যদিও জানি চলে যাওয়া মানে প্রস্থান নয়।

তিনি বলেন, এখানে আমার অবস্থানকালীন পুরোটা সময় আমি আন্তরিকভাবে চেষ্টা করেছি সকল অন্যায় আর অনিয়ম রুখে দিয়ে আপনাদের অধিকার সমুন্নত রাখতে। চেষ্টা করেছি আপনাদের একজন সেবক হয়ে থাকতে। আমার বিশ্বাস আমি সেটা পেরেছি। বাকিটা আপনাদের বিবেচনা।

তার স্বপ্নের কথা জানিয়ে ইউএনও লেখেন, স্বপ্ন ছিল সোনারগাঁয়ের অন্তত ৩০ হাজার তরুণকে পর্যায়ক্রমে পিডিএফ কপির ১০ টি বেসিক বই পড়াবো। বাঙালি জাতির উদ্ভব থেকে অদ্যাবধি এবং ব্যক্তিত্ব বিকাশে সহায়ক বইগুলি ছিল সে তালিকায়। স্বপ্ন ছিল আগামী দুই বছরে ত্রিশ হাজার শিক্ষিত বেকার তরুণ/তরুণীদের সরকারের আর্নিং বাই লার্নিং প্রোগ্রামের মাধ্যমে ট্রেনিং এর আওতায় এনে আত্মকর্মসংস্থানে সহায়তা করবো। এখানে হলো না সেসবের কিছুই।

পোস্টে আরও লিখেছেন, তবুও অনেক ভালোলাগা নিয়ে চলে যাচ্ছি।সোনারগাঁয়ের মানুষের সবচেয়ে বিপদের দিনে আমি পাশে ছিলাম বন্ধু হয়ে এ ভালোলাগার কোন তুলনা নেই। সুসময়ে নয়, দুঃসময়ে আমি সোনারগাঁয়ের দুঃখী মানুষগুলির সহযাত্রী হতে পেরেছিলাম সত্যিই এ আমার এক অন্যরকম প্রাপ্তি।

ইউএনও সাইদুল লেখেন, আপনারা আমাকে ভুল বুঝবেন না- অধীনতামূলক বশ্যতার অন্যায় নীতি মেনে নিতে পারিনি বলেই আমি স্বেচ্ছায় এখান থেকে চলে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এখান থেকে বদলী হতে আমার যে শ্রদ্ধেয় স্যারগণ সহযোগিতা করেছেন তাদের প্রতি আমি আন্তরিকভাবে কৃতজ্ঞ।

যে ভালোবাসা আর সম্মান আপনারা সোনারগাঁবাসী আমাকে দিয়েছেন, বিশ্বাস করুন এতটার যোগ্য আমি মোটেও নই। আমার বদলির খবর শুনে অসংখ্য মানুষ কষ্টে নির্ঘূম রাত কাটিয়েছেন সেকথা কয়েকদিন থেকেই শুনছি। সহস্র তরুণের বুকের হাহাকার দেখেছি। বাবার বয়সি মানুষের বুকের দীর্ঘশ্বাস দেখেছি। মায়ের বয়সী মহিলাকে চোখের সামনে অঝোরে কাঁদতে দেখেছি। ভাষা নেই, সত্যিই কিছু বলার ভাষা নেই আমার। শুধু এইটুকু বলি আপনাদের চোখের অকৃত্রিম জলগুলি সাথে করে নিয়ে যাচ্ছি। ভালোবেসে নীরবে ঝরানো একফোঁটা চোখের জলের মূল্য কত সে আমি খুব ভালো করেই জানি।

সৃষ্টিকর্তার কাছে শুধু এইটুকু প্রার্থনা সোঁনারগাবাসীর এই ভালোবাসার প্রতিদান দেবার সুযোগ তিনি যেন কোন একদিন আমাকে দেন। যেদিন যোগদান করেছিলাম সেদিন একটি কথা বলেছিলাম৷ আজও কবির ভাষায় সেটি বলেই শেষ করতে চাই, ‘মোর নাম এই বলে খ্যাত হোক! আমি তোমাদের লোক!’

No comments

Powered by Blogger.