সাংবাদিক রিপনের বিরুদ্ধে মিথ্যা অপপ্রচার।

 সদ্য সংবাদ ডেস্কঃ 

সোনারগাঁ প্রতিনিধিঃ নারায়ণগঞ্জ জেলার সোনারগাঁও উপজেলার সোনারগাঁ জি আর ইনস্টিটিউশনের মেইন গেইটের নাম ফলক ভাঙ্গার বিরুদ্ধে মানববন্ধনের সংবাদ পরিবেশন করায় এমপি লিয়াকত হোসেন খোকার নেতাকর্মীরা উদ্দেশ্য প্রণীত ভাবে সাংবাদিক শওকত ওসমান সরকার রিপনের বিরুদ্ধে মিথ্যা জায়গা দখল ও হুমকি প্রদান সহ অপপ্রচার চালাচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে।




                            সাংবাদিক রিপন সরকার


গতকাল মঙ্গলবার বিকালে সোনারগাঁ জিআর ইনস্টিটিউশন স্কুল এন্ড কলেজের সামনে নারায়ণগঞ্জ- ৩ আসনের জাতীয় পার্টির এমপি লিয়াকত হোসেন খোকার বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগের মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশের প্রতিবাদে প্রতিবাদ সভায় এই অপপ্রচার চালানো হয়। সভামঞ্চে এক নারী সোনারগাঁও উপজেলা আওয়ামী লীগের এক নেতার বিরুদ্ধে বক্তব্য দেওয়ার সময় এমপি লিয়াকত হোসেন খোকার সোনারগাঁও উপজেলা জাতীয় পার্টির প্রচার সম্পাদক সহিদ তার মোবাইল মনিটর দেখে ওই নারীকে বলে সাংবাদিক রিপনের নাম বলার জন্য। পরে ওই নারী সাংবাদিক রিপন জমি দখল ও হুমকি দিচ্ছে বলে বক্তব্যে বলেন।

সাংবাদিক রিপনের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, যে মহিলা কে দিয়ে তার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে
সেই মহিলাকে সাংবাদিক রিপন জীবনে কখনোও দেখেন নাই বা চিনেন না। এবং তার সঙ্গে এই মহিলার কোনো লেনদেন নেই। তাই প্রশ্নই ওঠে না তার জায়গা দখলে যাওয়ার বা ওই মহিলাকে হুমকি প্রদানের। তিনি বলেন সাংবাদিকদের কাজ হুমকি ধামকি দিয়ে কারো জায়গা জমি দখল করা নয়। সাংবাদিকদের কাজ হচ্ছে জনসমক্ষে সঠিক সংবাদ তুলে ধরা।

উল্লেখ্য, জি আর স্কুল এন্ড কলেজ গেইটে স্থাপিত আনােয়ার হােসেনের উদ্বোধনী নামফলক ভেঙে দেয়া হয়েছিল। জাতীয় পার্টির সাংসদ লিয়াকত হােসেন খােকার নির্দেশে এই নামফলক ভাঙা হয় বলে অভিযােগ উঠে। এই ঘটনায় মহানগর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে শহরে মানববন্ধন, বিক্ষোভ, কুশপুত্তলিকা দাহ করা হয়। এছাড়া জেলা পরিষদের পক্ষ থেকে সােনারগাঁয়েও উক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সামনে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করা হয়েছিল। পাশাপাশি সোনারগাঁও উপজেলা যুবলীগের উদ্যোগে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ পালিত হয়েছে। সেখানে নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনের আওয়ামী লীগের দলীয় সাবেক সাংসদ কায়সার হাসনাত, উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মোশারফ হোসেন,মোগরাপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আরিফ মাসুদ বাবু, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম নান্নু সহ কয়েক হাজার নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

তিনি বলেন, আমি বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ প্রকাশে ঈমানী দায়িত্ব বলে মনে করি। জাতীয় পার্টির সাংসদ লিয়াকত হোসেন খোকার বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গসংগঠনের মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তারা তাদের বক্তব্যে যা বলেছেন আমি আমার নিউজে তা তুলে ধরেছি। এই নিউজ এমপি লিয়াকত হোসেন খোকার হয়তো পছন্দ হয়নি, তাই আমার বিরুদ্ধে এক নারীকে দিয়ে হুমকি প্রদানের মিথ্যে অপপ্রচার চালাচ্ছে। ভিডিও ফুটেজ দেখা যায়,এমপি লিয়াকত হোসেন খোকার ঘনিষ্ঠ সোনারগাঁও উপজেলা জাতীয় পার্টির প্রচার সম্পাদক সহিদ নামে এক ব্যাক্তি শিখিয়ে দিচ্ছে আর ওই নারী তার বক্তব্যে আমার নাম তুলে ধরছেন। প্রমাণ হিসেবে আমার নাম শিখিয়ে দেওয়ার সেই ভিডিও ফুটেজটি সংগ্রহে আছে।

সাংবাদিকতার নৈতিক বোধ থেকে, একজন সাংবাদিক সমাজের অনৈতিক কর্মকাণ্ডকে তার লেখনির মাধ্যমে দেশ ও জনগণের সামনে তুলে ধরবে এটাই স্বাভাবিক।
অন্যায়ের বিরুদ্ধে কলম ধরলে এখন জীবন হয় বিপন্ন। এটা একটি দেশের জন্য কখনোই ভালো হতে পারে না। কোনো সংবাদ ক্ষমতাবান প্রভাবশালীদের মনের মতো না হলেই সংবাদ কর্মীর বিরুদ্ধে চলে অপপ্রচার। সাংবাদিকদের দেওয়া হয় অপকর্মের আখ্যা। আমার বিরুদ্ধে যে অপপ্রচার করা হয়েছে তা স্বাধীন সংবাদ প্রকাশে গণমাধ্যমের সাংবাদিকদের জন্য যে হুমকির ইঙ্গিত তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

আমি একজন সংবাদকর্মী হিসেবে মনে করি একজন সাংবাদিক
সত্য সংবাদ প্রকাশ করতে গিয়ে যখন হুমকি ও নির্যাতনের শিকার হয় তা রাষ্ট্রের জন্য অত্যন্ত লজ্জ্বার। কারণ দেশের সরকার ব্যবস্থাপনার চতুর্থ স্তম্ভ হলো সাংবাদিকতা। যার মাধ্যমে সমাজের প্রতিচ্ছবি প্রতিফলিত হয়। তবে সে চতুর্থ স্তম্ভ যখন রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক ক্ষমতাবানদের দ্বারা প্রভাবিত বা নির্যাতিত হয় তখন অন্যায় মাথা চাড়া দিয়ে উঠে।

সাংবাদিক শওকত ওসমান সরকার রিপন আরো বলেন, বিরোধী দলীয় (জাতীয় পার্টির) এমপি লিয়াকত হোসেন খোকার বিরুদ্ধে মানববন্ধন ও প্রতিবাদের সংবাদ প্রকাশ করায়, সাংসদ ও তার নেতাকর্মীরা উদ্দেশ্য প্রণীত ভাবে সমাজে আমার মানসম্মান ক্ষুন্ন করার জন্য আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছেন।
এই ঘৃণিত কাজের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।


এসএস/বি



Post a Comment

[blogger]

যোগাযোগের ফর্ম

Name

Email *

Message *

Theme images by merrymoonmary. Powered by Blogger.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget