ঘর আলো করে এলো শাটলার দম্পত্তি এলিনা-এনায়েতের ঘরে পূত্র সন্তান।



সদ্য সংবাদ ডেস্কঃ

দ্বিতীয়বারের মতো সন্তানের মা-বাবা হলেন তারাকা শাটলার দম্পত্তি এলিনা সুলতানা-এনায়েত উল্লাহ খান। রাজধানীর একটি হাসপাতলে শুক্রবার বিকেল ফুটফুটে এক পূত্র সন্তানের জন্ম দেন দেশের অন্যতম সেরা নারী ব্যাডমিন্টন খেলোয়াড় ৩১ বছর বয়সী এলিনা সুলতানা। মা এবং ছেলে উভয়ই সুস্থ আছেন বলে জানিয়েছেন এলিনার স্বামী শাটলার কোচ (বাংলাদেশ জাতীয় দল ও পুলিশ দল) সাবেক তারকা শাটলার এনায়েত। এই দম্পত্তির আরশি খান নামে ৮ বছরের একটি কন্যা সন্তানও রয়েছে।




ছেলের বাবা হওয়ার অনুভূতি জানিয়ে সদ্য সংবাদ ডট কমকে জানান, বাবা হওয়ার আনন্দ আসলে ভাষায় প্রকাশ করার মতো নয়। ৮ বছর আগেই আল্লাহপাক আমাকে সেই সুখ দিয়েছেন। তখন কন্যা সন্তানের বাবা হয়েছিলাম, এবার পূত্র সন্তানের বাবা হলাম। আল্লাহর কাছে অশেষ শুকরিয়া। মা-ছেলে উভয়ই ভালো আছেন। ডাক্তারদের বিশেষ ধন্যবাদ দিতে চাই। তারা আমাদের অনেক সহযোগিতা করেছেন।

এনায়েত আরও যোগ করেন, আমি এবং এলিনা অনেকদিন ধরে ব্যাডমিন্টনের সঙ্গে আছি। জানি এই অঙ্গনে আমাদের শুভাকাংখির অভাব নেই। সবার কাছে অনুরোধ করবো সবাই আমার স্ত্রী এবং সন্তানের জন্য দোয়া কররবেন।

২০০২ সালে ব্যাডমিন্টন ক্যারিয়ার শুরু করা এলিনা এ পর্যন্ত চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন জাতীয় চ্যাম্পিয়নশিপে এককে ২ বার, দ্বৈতে ৪ বার, সামারে এককে ৪ বার, দ্বৈতে ৫ বার। এছাড়া আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টেও সাফল্য আছে তার। নেপালে ২০১৬ ও ২০১৭ সালে নেপাল ওপেন ইন্টারন্যাশনালে দ্বৈতে এবং মিশ্র দ্বৈতে তাম্রপদক জিতেছেন। তাম্রপদক জিতেছেন ২০১৮ সালে বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল ওপেনেও। সর্বশেষ তিনি খেলেন বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর হয়ে।

এদিকে ৪৪ বছর বয়সী এনায়েতের সাফল্যও কম নয়। তিনি ক্লাব পর্যায়ে ২ বার চ্যাম্পিয়ন, ১ বার রানারআপ, জাতীয় চ্যাম্পিয়নশিপে ১ বার চ্যাম্পিয়ন, রাংকিং এককে ৪ চ্যাম্পিয়ন, ৫ বার রানারআপ, জাতীয় মিশ্র দ্বৈতে প্রতিযোগিতায় ৩ বার রানারআপ হয়েছেন। আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় ২০০১ ও ২০০৮ সালে ওয়ার্ল্ড এয়ারলাইন্স টুর্নামেন্টে দলগত ভাবে গোল্ড মেডেল লাভ করেন। এছাড়া ওই আসরে এককে এবং ২০০১ সালে জেবিসি এশিয়ান স্যাটেলোইন টুর্নামেন্টে দলগততে রানারআপ হন এনায়েত।

এনায়েতের সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে একটি ব্যাডমিন্টন একাডেমিও চালান এলিনা, নাম এনালিনা ব্যাডমিন্টন একাডেমি (স্বামী এবং তার নামের আদ্যোক্ষর মিলিয়ে নামকরণ)। ২০১৩ সালে নড়াইল ও পরে খুলনা এবং ঢাকার দুট স্থানে একাডেমির কার্যক্রম সম্প্রসারিত হয়। এনায়েত হচ্ছেন একাডেমির চেয়ারম্যান ও কোচ, আর এলিনা চীফ এক্সিকিউটিভ অফিসার ও কোচ।

এলিনা এবং এনায়েত দম্পত্তির আছে আরেকটি কৃত্বিত্বপূর্ণ অর্জন। দুজনেই দেশের একমাত্র জাতীয় চ্যাম্পিয়ন শাটলার হিসেবে ব্যাডমিন্টন ওয়ার্ল্ড ফেডারেশন থেকে সার্টিফাইড লেভেল-টু কোচ হয়েছেন।

এসএস/বি

Marcadores:

Post a Comment

[blogger]

যোগাযোগের ফর্ম

Name

Email *

Message *

Theme images by merrymoonmary. Powered by Blogger.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget