Header Ads


নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে মানববন্ধন,এমপি খোকার শাস্তি দাবি।

 


সদ্য সংবাদ ডেস্কঃ 

সোনারগাঁও পৌর এলাকায় নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের বরাদ্দকৃত অর্থে সোনারগাঁ জিআর ইন্সটিটিউট স্কুলের সীমানা প্রাচীর ও ফটক নির্মাণ কাজের উদ্বোধনের ফলক ভেঙে ফেলার প্রতিবাদে,নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকার বিরুদ্ধে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

আজ শুক্রবার (২০ নভেম্বর) বিকালে নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের উদ্যোগে সোনারগাঁও পৌরসভার জিআর ইন্সটিটিউট স্কুলের সামনে এই মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম ভূঁইয়ার সভাপতিত্বে ও সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান মাসুমের সঞ্চালনায় প্রতিবাদ কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি আরজু রহমান ভূঁইয়া, সোনারগাঁও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মোশারফ হোসেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মাহফুজুর রহমান কালাম, কেন্দ্রীয় আওয়ামী মহিলা লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নাসরিন সুলতানা ঝরা, সোনারগাঁও জিআর ইন্সটিটিউট স্কুলের গভর্নিং বডির সভাপতি নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের সদস্য ফারুক হোসেন, আলাউদ্দিন, মোস্তফা চৌধুরী, রোমান, সোনারগাঁও উপজেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি গাজী মুজিবুর রহমান, নারায়ণগঞ্জ জেলা যুব আইনজীবী পরিষদের সভাপতি ফজলে রাব্বী,নারী শ্রমিকলীগ নেত্রী নীলা আহমেদ নিশী প্রমুখ।

এসময় বক্তারা তাদের প্রতিবাদী বক্তব্যে বলেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের বরাদ্দকৃত অর্থে নির্মিত সোনারগাঁ জিআর ইন্সটিটিউট স্কুলের মূল ফটকের পাশেই নির্মাণ কাজের উদ্বোধক হিসেবে নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেনের নামে একটি ভিত্তি প্রস্তর নামফলক লাগানো হয়। 

যা গত ১৭ নভেম্বর মঙ্গলবার দুপুরে জাতীয় পার্টি এমপি লিয়াকত হোসেন খোকার নির্দেশে তার সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে ভেঙে ফেলে। বক্তারা বলেন, নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সংগ্রামী সভাপতি,নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আমাদের শ্রদ্ধাভাজন নেতা আনোয়ার হোসেন ভাইয়ের নামে সরকারের উন্নয়ন নামফলক ভেঙ্গে দিয়েছে নারায়ণগঞ্জ ৩ আসনের এমপি লিয়াকত হোসেন খোকা।

আমরা এর তীব্র নিন্দা জানাই। খোকাকে হুশিয়ার করে নেতারা বলেন,আওয়ামী লীগের দয়ায় পরপর দু'বার এমপি হয়েছেন। আইন প্রণেতা হয়েও আপনি বেআইনি কাজ করছেন। সন্ত্রাসী কর্মকান্ডে নিজেকে জড়িয়ে নিজের রাজনৈতিক কফিনে শেষ পেরেকটিও মেরে ফেলেছেন।আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনে পৌরবাসী আপনাকে এর সঠিক জবাব দিবে।

বক্তারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে লিয়াকত হোসেন খোকার বিরুদ্ধে এই ন্যাক্কারজনক ঘটনার বিচার চেয়ে শাস্তি দাবী করেন।

তারা বলেন,বিএনপি যখন ক্ষমতায়,তখনো আমাদের দাবী আদায়ে, প্রতিবাদে রাজপথে থাকতে হতো।ক্ষমতায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সরকার, দুঃখের বিষয় এখনো আমাদের প্রতিবাদে, মানব বন্ধনে রাজপথেই থাকতে হচ্ছে। 

কিন্তু না,আমরা আর ব্যানার নিয়ে রাস্তায় থাকবো না, এখন প্রতিরোধের সময় এসেছে। এমপি খোকা যদি আমাদের নেতা আনোয়ার ভাইয়ের কাছে প্রকাশ্যে ক্ষমা না চান, তাহলে সোনারগাঁও আওয়ামী লীগ খোকার চামড়া তুলে ফেলবে।সেটাই দেখার অপেক্ষা আছি।

মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশে,নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ, মুক্তিযোদ্ধা, একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি, সোনারগাঁও উপজেলা আওয়ামী লীগ এবং এর অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের কয়েকহাজার নেতাকর্মীরা অংশ গ্রহণ করেন।


এসএস/বি

Post a Comment

0 Comments